ঢাকা, বুধবার, ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং | ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা ইস্যুতে বিশ্বজুড়ে উত্তেজনা

প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট : ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে পবিত্র জেরুজালেম শহরকে স্বীকৃতি দিতে পারেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। অন্যদিকে আশঙ্কা করা হচ্ছে, তিনি এমন ঘোষণা করলেই আরব দুনিয়া জুড়ে প্রবল বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়তে পারে।

যার প্রভাব পড়তে পারে তেলের ব্যবসায়ও।

ইতিমধ্যেই ট্রাম্পের সিদ্ধান্তকে সমালোচনা করেছে মিশর, জর্ডান সহ একাধিক আরব দেশ। ফলে দুনিয়ার অন্যতম প্রাচীন নগরীর দিকেই নজর আন্তর্জাতিক মহলের। রয়টার্স, এপি সহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের খবর, ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় শামিল হয়েছে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, জর্ডান ও তুরস্কের মতো একাধিক দেশ। ইউরোপের ফ্রান্স এবং জার্মানিও এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে।

মার্কিন সংবাদ মাধ্যম এবিসি জানাচ্ছে, এখনই না হলেও তেল আভিভ থেকে আমেরিকার দূতাবাস সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। পাশাপাশি, ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে জেরুজালেমকেও স্বীকৃতি দিতে পারেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে ইসরায়েল সরকার। অন্যদিকে এর চরম বিরোধিতায় শামিল হয়েছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ সহ আরব দুনিয়ার বহু দেশ।

বিশেষ সূত্র থেকে সংবাদ সংস্থাটি জানাচ্ছে, আগামী তিন বছরের মধ্যে জেরুজালেমে দূতাবাস সরানোর জন্য উদ্যোগ নিতে বলেছে ট্রাম্প প্রশাসন।

অন্যদিকে ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা বিবিসি-র খবর, তড়িঘড়ি এমন কোনও সিদ্ধান্ত নাও নিতে পারেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট। রিপোর্টে বলা হয়েছে, মার্কিন দূতাবাসকে তেল আভিভ থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তর করতে ১৯৯৫ সালেই একটি বিল এনেছিল মার্কিন কংগ্রেস। তবে ট্রাম্পের আগে কোনও মার্কিন প্রেসিডেন্ট দূতাবাস স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেননি।

প্রসঙ্গত, ১৯৮০ সালে জেরুজালেমকে রাজধানী ঘোষণা করে ইসরায়েল। তবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় তখন তাদের সমর্থন করেনি। আশির দশকে গাজা ও ওয়েস্ট ব্যাংকে প্রথম ইন্তিফাদা (গণ অভ্যুত্থান) হয়। রক্তাক্ত সেই পরিস্থিতি পার করে ১৯৯৩ সালে ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে শান্তি চুক্তি হয়। সেই শান্তি চুক্তি অনুসারে, ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ তাদের রাজধানী হিসেবে পূর্ব জেরুজালেমকে দাবি করে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যাতে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি না দেন তার জন্য হুঁশিয়ারি দিয়েছে মুসলিম দুনিয়ার অনেক নেতা। আরব লিগের প্রধান আহমেদ আবুল ঘেইত বলেছেন, জেরুজালেমকে ঘিরে ট্রাম্পের অবস্থানে মধ্যপ্রাচ্যসহ পুরো বিশ্বের স্থিতিশীলতা নষ্ট করবে। জর্ডান পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত ‘বিপজ্জনক পরিণতির’ দিকে ঠেলে দেবে বিশ্বকে। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান জেরুজালেম নিয়ে ‘সীমা লঙ্ঘন’ না করতে ট্রাম্পকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

এদিকে উত্তেজনা বেড়েই চলেছে ফিলিস্তিনিদের মধ্যে। ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম গার্ডিয়ানের খবর, জেরুজালেমকে ঘিরে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অবস্থানে উদ্বিগ্ন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের প্রধান মাহমুদ আব্বাস। তিনি বিভিন্ন রাষ্ট্রের প্রধানদের সঙ্গে টেলিফোনে আলোচনা করছেন। আর গাজা শহরে ক্ষমতায় থাকা সশস্ত্র সংগঠন হামাসের হুমকি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জেরুজালেমকে যদি ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মেনে নেয় তাহলে ফের তারা ‘ইন্তিফাদা’ বা গণ-অভ্যুত্থান শুরু করবে।

Lead News এর আরও খবর
Translate »