প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :       প্রশ্নঃ বয়স ২০ বছর, অবিবাহিত, উচ্চতা ৫*৪,  ওজন ৫৬ কেজি।

 

 

 

আমি আগে মাঝে মধ্য হস্তমুথন করতাম কিন্তু এখন প্রায় ছেড়ে দিয়েছি। আমার সব সময় না মাঝে মাঝে প্রশ্রাবে খুব জালা পোড়া করে  যেমন ২-৩ দিন পর পর ও হতে পারে আবার মাসে ২-১ বাড় অথবা সপ্তাহে একবাড় হতে পারে তবে কোনো ঠিক ঠিকানা নেই আর অন্য সময় তেমন কোনো সমস্যা হয় না যখন জালা করেতখন অনেক ক্ষন ধরে প্রশ্রাব ফোটায় ফোটায় পড়ে আর একটু পর পর ঈ প্রশাব করতে হয়

 

 

 

 

আর মাঝে মাঝে অন্ডকোষ ও এর সাথের রগ ফুলে যেয়ে অনেকটা ব্যাথা শুরু হয় যেমন অন্ডকোষ ও এর আশেপাশেরর রগ গুলো ব্যাথায় টন টন করে শপর্শ  করলে খুব ব্যাথা হয় তখন হাটা চলা করতে সমস্যা হয় এটা বাম পাশেরর অন্ডকোষে বেশি ফুলে যায় এবং ব্যাথা হয় আর ডান পাশের টা একটু কম হয়।(বাম পাশের অন্ডকোষ একটু বেশি ঝুলে থাকে সব সময়ই)

 

 

 

 

 

 

তবে অন্ডকোষ ব্যাথা সব সময় হয় না এটা হয় যেমন প্রশ্রাবে জালাপোড়া করলে, লিংগ উত্তেজিত হলে, গার্ল্ফেন্ড এর সাথে ঘুরতে গেলে এমন টা হয় আর মাঝে মাঝে কোনো কারন ছাড়াই অন্ডকোষ ব্যাথা করে।

 

 

 

 

তবে ব্যাথার সময় হস্তমুথন করে বীর্য বের করে দিলে ব্যথাটা কমে যায় তারাতারি (তবে তখন বীর্য গুলো তরল আকারে বেড় না হয়ে কিছুটা জমাট বেধে বেধে বের হয়) আর এম্নিতে ব্যাথা কমতে ৩-৪ ঘনটা সময় লাগে তবে কোনো প্রকার নরা চরা করলে ব্যাথা কমে না। স্থির হয়ে বসে বা সুয়ে থাকতে হয়।

 

 

 

 

 

আর প্রশ্রাবে জালাপোড়ার ব্যাপার টা হলো এটা প্রশ্রাব করতে গেলে হটাথ করে জালাপোড়া শুরু হয় এটা আগে থেকে জানা যায় না এটা যে কোনো সময় হতে পারে আর এমন হলে প্রশাবের সাথে বীর্য বের হয় মাঝে মাঝে তবে বীর্য বেড় হয় তরল আকারে না। খন্ড খন্ড আকারে যেমন টা জমাট বাধাও বলা যেতে পারে। আর  একটু পর পরই প্রশ্রাব করতে হয় নইলে মুত্রনালীতে জালাপোড়া করে।

 

 

 

 

তবে এটা মোটা মুটি কয়েকবার  প্রশ্রাব করলে আর ২-৩ ঘন্টার ভেতর ভালো হয়ে যায়। তবে  খুব অশস্তি লাগে তখন কোনো কাজে মন বসাতে পারি না কোনো কিছু ভালো লাগে না।

 

 

 

 

 

#আমার সমস্যা গুলো আমার মতো করে বললাম বুঝতে সমস্যা হলে মন্তব্য করুন। আর সঠিক উত্তর জানা থাকলে জানান প্লিজ।

 

 

 

 

উত্তরঃ ভাই এটা আপনার মুত্রনালীতে ইনফেকশনের কারনে হচ্ছে ৷ স্বাভাবিকভাবে পেশাবের সাথে বীর্য বের হওয়ার কোন উপায় নেই ৷

 

 

 

 

 

আর আপনার বর্ণিত লক্ষণ দেখে বুঝা যাচ্ছে এটা গনোরিয়া রোগ হতে পারে ৷ কাজেই আপনি ভালভাবে চিকিৎসা নিন ৷ মোটেই অবহেলা করবেন না ৷