প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :     ছবির গল্পে আমার সাথে নায়কের ছোটবেলা থেকেই প্রেম থাকে। আমরা একে অপরকে অনেক ভালোবাসি। কিন্তু গ্রামে একটা খুন হয়। সেই খুনের অভিযোগ মাথায় নিয়ে নায়ক পালিয়ে যায় গ্রাম থেকে।

 

 

 

 

 

 

নায়কের অনুপস্থিতিতে আমার অন্য জায়গায় বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। যে কারণে আমি একসময় আত্মহত্যা করার চিন্তা করি। তারপর নায়ক শহরে গিয়ে আরেকটা প্রেম করেন।

 

 

 

 

শহরের সেই নায়িকা চরিত্রে অভিনয় করেছেন অপু বিশ্বস। সে হিসেবে অপু নয়, আমিই ‘পাংকু জামাই’ -এ প্রথম নায়িকা। অথচ ছবির পোস্টারসহ সবখানে আমার ছবি নেই বললেই চলে।”

 

 

 

 

 

আসন্ন ঈদে মুক্তি পেতে যাওয়া ‘পাংকু জামাই’ ছবির আরেক নায়িকা পুস্পিতা পপি এভাবেই নিজের ক্ষোভের কথা জানান প্রথমবার্তাকে।

 

 

 

 

 

পুস্পিতা পপি অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার সাথে শুটিং শেষ হয়নি। মাত্র চারটি সিক্যুয়েন্সের শুটিং করেছি। আরো বেশ কয়েকটি সিক্যুয়েন্স বাকি রয়েছে।

 

 

 

 

 

কিন্তু অপু বিশ্বাস হঠাৎ নিখোঁজ হওয়ার পর আর কোনো শুটিং হয়নি। আমার সাথে একটি গান ছিল শাকিব খানের, যা শুটিং করা হয়নি। তার চেয়ে বড় বিষয়, আমাদের গল্পের যে কয়টা সিক্যুয়েন্স ছিল, তার অর্ধেকও শুটিং শেষ হয়নি।

 

 

 

 

 

 

আমি যতদূর জানি, অপু বিশ্বাসের সাথে দেড়টা গানের শুটিং হয়েছে, বেশ কিছু সিক্যুয়েন্স তারও বাকি আছে, এমন অবস্থায় ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে শুনেছি।

 

 

 

 

যদি ছবিটি মুক্তি পায়, তা হলে দর্শক কী গল্প দেখবেন, আর কীভাবেই ছবিটি মুক্তি দিচ্ছেন পরিচালক আমি বুঝতে পারছি না।’

 

 

 

 

 

বাংলাদেশে একটা সময় ছিল, যখন ঈদের ছবি মানেই ছিল শাকিব-অপুর চলচ্চিত্র। গত দু-তিন বছরে অবশ্য পরিস্থিতি পরিবর্তন হয়েছে। অপুর পরিবর্তে এখন জায়গা করে নিয়েছেন শবনম বুবলী।

 

 

 

 

পারিবারিক ও ব্যক্তিগত কারণে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস আর এখন একসাথে কাজ করেন না। তবে এবার ব্যতিক্রম হতে পারে যদি ঈদে ‘পাংকু জামাই’ ছবিটি মুক্তি পায়। ছবিটি পরিচালনা করেছেন আবদুল মান্না। প্রযোজনা করেছেন মুজাম্মেল হক।

 

 

 

 

 

এ বিষয়ে পরিচালক আবদুল মান্না প্রথমবার্তাকে বলেন, ‘একজন পরিচালকই জানে কার কতটা শুটিং করতে হবে। আমি যদি চারটি সিক্যুয়েন্স দিয়ে দর্শকদের গল্প বোঝাতে পারি, তা হলে ১৪টা সিক্যুয়েন্সের দরকার কি?

 

 

 

 

আর গানের বিষয়টি হচ্ছে আমরা চেয়েছিলাম পপির সাথে একটি গান রাখতে। কিন্তু পরে ছবির শুটিং বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে তা আর সম্ভব হয়নি।

 

 

 

 

 

আর অপু বিশ্বাসের দেড়টি গানের শুটিং হয়েছে বিষয়টি ঠিক নয়, আমরা ছবির সবকিছুই শেষ করেছি। ঈদে ছবিটি মুক্তির জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

 

 

 

 

২০১৬ সালে ছবির শুটিং চলাকালে হঠাৎই ‘নিখোঁজ’ হন অপু বিশ্বাস। তার পর বন্ধ হয়ে যায় ছবির কাজ। পুরো দেড় বছর পর আবার তিনি ফিরে আসেন, ছেলে জয়কে নিয়ে।

 

 

 

 

অবশ্য পরে ‘পাংকু জামাই’ ছবির শুটিং শেষ করে দেন তিনি। যদিও এরপর আর শাকিব খান ছবির কোনো শুটিং করেননি।

 

 

 

 

 

ছবিতে শাকিব খান, অপু বিশ্বাস, পুষ্পিতা পপি ছাড়াও অভিনয় করেছিলেন এ টি এম শামসুজ্জামান।