প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় চুয়াডাঙ্গায় ৮ম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে কুপিয়ে জখম করেছে এক বখাটে। বুধবার সকাল নিজ বাড়ি থেকে স্কুলের পথে চুয়াডাঙ্গার হাজরাহাটি গ্রাম ওই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

 

 

 

 

গুরুতর জখম ওই স্কুলছাত্রীকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে। আহত ওই স্কুলছাত্রীর নাম লিমা খাতুন (১৪)। চুয়াডাঙ্গা রাহলা খাতুন গালর্স একাডমির ৮ম শ্রণীর ছাত্রী।

 

 

 

 

 

 

প্রত্যক্ষর্দশীরা জানান, চুয়াডাঙ্গার হাজরাহাটি গ্রামের আব্দুর রহমানের মেয়ে লিমা সকালে বাড়ি থেকে স্কুলের উদ্দেশ্যে বের হয়। সকাল ৯টা ২০ মিনিটের দিক ঐ গ্রামে একটি কবরস্থানের কাছে পৌঁছালে পিছন থেকে চিহ্নিত বখাটে রানা তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয় যায়। পরে স্থানীয়রা ওই ছাত্রীকে উদ্ধার কর চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

 

 

 

 

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালর সার্জারী কনসালটেন্ট ডা. ওয়ালিউর রহমান নয়ন জানান, ছুরিকাঘাত মেয়েটির কিডনির ঠিক একটু নিচে হওয়ায় প্রচুর রক্ষক্ষরণ হয়ছে। শিক্ষার্থীকে গভীর পর্যবক্ষণে রাখা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টা পার না হলে কান কিছু বলা ঠিক হবেনা।

 

 

 

 

 

জখম ওই শিক্ষার্থী জানান, চুয়াডাঙ্গা শহরর সর্দার পাড়ার লিয়াকতের ছেলে রানা দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে যাওয়া আসার পথে আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিত। তার প্রস্তাব রাজি না হওয়াতে বিভিন্ন সময় আমাকে হত্যার হুমকি দিত।

 

 

 

 

 

 

পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান জানান, রানাকে গ্রেফতারে ইতিমধ্যে পুলিশের বশ কয়েকটি টিম মাঠে নামানো হয়ছে। খুব শিগগিরই রানা আইনের আওতায় আসবে।