প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    চরম অনিশ্চয়তায় ডুবে ছিলো এবারের ঈদের সিনেমা। দর্শক আগ্রহে এগিয়ে থাকা সিনেমা ‘সুপার হিরো’র মুক্তি নিশ্চিত হয় ঈদের মাত্র এক দিন আগে। যেটার নায়ক শাকিব খান।

 

 

 

 

এছাড়া তার অন্য দুটি সিনেমা অর্থাৎ ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ ও ‘পাঙ্কু জামাই’র ট্রেলার নিয়েও মিশ্র প্রতিক্রিয়া ছিলো। ফলে অনেককেই বলতে শোনা গেছে, এবারের ঈদের বাজারে হয়ত শাকিবের চাহিদায় ভাটা পড়বে।

 

 

 

 

 

কিন্তু সিনেমা মুক্তির পর চিরচেনা বীরদর্পেই হাজির হলেন শাকিব। দেশব্যাপী প্রায় ৩০০ সিনেমা হলেই চলছে তার ছবি। এর মধ্যে ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ চলছে ১৩০ টির বেশি হলে, ‘সুপার হিরো’ চলছে প্রায় ১০০ সিনেমা হলে এবং ‘পাঙ্কু জামাই’ চলছে প্রায় ৪০টির মতো হলে।

 

 

 

 

 

 

এর মধ্যে দর্শক চাহিদায় এগিয়ে আছে আশিকুর রহমান পরিচালিত ‘সুপার হিরো’। যেখানে শাকিব খানের সঙ্গে আছেন বুবলী, তারিক আনাম খান, তাসকিন রহমান, শম্পা রেজার মতো তারকারা। দেশের বিভিন্ন সিনেমা হলে ছবিটি দেখতে দর্শকের উপচেপড়া ভীড় লক্ষ করা যাচ্ছে।

 

 

 

 

 

ঈদের দিন থেকেই দর্শকের উপস্থিতি উল্লেখ করার মতো। দ্বিতীয় দিনে এসে দর্শকের পরিমাণ আরো বেড়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অনেক হলেই হাউজফুল চলছে ‘সুপার হিরো’। অ্যাকশনে ভরপুর এই সিনেমা দেখে দর্শকরাও বেশ ইতিবাচক সাড়া দিচ্ছেন।

 

 

 

 

 

দর্শকপ্রিয়তায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’। উত্তম আকাশ পরিচালিত এই সিনেমা কমেডি নির্ভর। দুই অঞ্চলের ভাষাগত দিক ও পারিবারিক গল্পে আবর্তিত এই ছবির দৃশ্যপট।

 

 

 

 

রয়েছে অ্যাকশনও। যার ফলে এটিও দর্শকের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছে। বিভিন্ন সিনেমা হলে ছবিটি দেখতে দর্শকের লম্বা লাইন লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

 

 

 

 

তবে ‘পাঙ্কু জামাই’ ছবিটি তেমন সাড়া পাচ্ছে না। শাকিব-অপু জুটির শেষ ছবি বলা যায় এটাকে। এই জুটির পর্যাপ্ত দর্শকপ্রিয়তা থাকলেও সেটা কাজে লাগেনি। সুতরাং এটা বলার অপেক্ষা থাকে না যে, শাকিব-অপু জুটির চাহিদা আর আগের পর্যায়ে নেই।

 

 

 

 

শুধু বাংলাদেশেই নয়, পশ্চিমবঙ্গেও বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে শাকিব খানের সিনেমা। সেখানে ঈদ উপলক্ষে শাকিবের ‘ভাইজান এলো রে’ মুক্তি পেয়েছে। জয়দীপ মুখার্জির পরিচালনায় এই ছবিতে শাকিবের নায়িকা শ্রাবন্তী ও পায়েল সরকার।

 

 

 

 

 

পশ্চিমবঙ্গের ৭৯টি হলে একসঙ্গে চলছে সিনেমাটি। সেখানকার দর্শকের প্রতিক্রিয়াও উল্লেখযোগ্য। সোশ্যাল মিডিয়ার সুবাদে জানা যায়, পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন হলে ‘ভাইজান এলো রে’ দেখতে দর্শকের ভীড় হচ্ছে। লাইন ধরে টিকেট কেটে দর্শকরা ছবিটি উপভোগ করছেন এবং দেখার পর বেশ ইতিবাচক মন্তব্য দিচ্ছেন।

 

 

 

 

 

দুই দেশ মিলিয়ে ঈদের সিনেমা বাজার শাকিবকে ঘিরে জমে উঠেছে। সিনেমাপ্রেমি দর্শকের কাছে শীর্ষস্থানীয় এই নায়কের সিনেমা বরাবরের মতই গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছে। এখন দেখার পালা, এই সিনেমাগুলো সাফল্য ছুঁতে পারে কিনা…।