প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     রাজধানীর উপকণ্ঠ কেরানীগঞ্জের একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় জার্মান প্রবাসী এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরিবারের অভিযোগ হাসপাতালের ‘কথিত’ চিকিৎসকরা ভুল ইনজেকশন দেয়ার তিন মিনিটের মধ্যে ওই যুবকের মৃত্যু হয়।

 

 

 

 

মৃত যুবকের নাম সাগর ঢালি। কেরানীগঞ্জ মধ্যচরের ঝাউতলা মহিলা মাদরাসা সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা মৃত নুর ইসলামের ছেলে সাগর ঢালি। গত ৮ বছর আগে তিনি জার্মানি যান। সেখানে বিয়ে করেন তিনি।

 

 

 

 

 

 

তার ছোট ভাই শাওন ঢালি জানান, গত ৪ জুন তার ভাই পরিবার পরিজনের সঙ্গে ঈদ করতে দেশে আসেন। গতকাল বাসার পাশের মাঠে ফুটবল খেলছিলেন। খেলা শেষে সাগর জানান, তার বুকে ব্যথা করছে। এ সময় তারা স্থানীয় আঁটি বাজারস্থ ‘ল্যাবফোর জেনারেল হাসপাতালে’ নিয়ে যান। এ সময় হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার প্রেশার মেপে দুটি ইনজেকশন দেন। দ্বিতীয়, ইনজেকশনটি দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে সাগর মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

 

 

 

 

 

 

শাওনের অভিযোগ তার ভাইকে ভুল ইনজেশন অর্থাৎ অপচিকিৎসা করে মেরে ফেলা হয়েছে। হাসপাতালটিতে দক্ষ কোনো চিকিৎসক ও নার্স না থাকায় তার ভাই মারা গেছেন।

 

 

 

 

 

 

এ বিষয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি শাকের মোহাম্মদ জোবায়ের জাগো নিউজকে জানান, ভুল চিকিৎসায় ল্যাবফোর হাসপাতালে কেউ মারা গেছেন বলে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।