প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   কম বয়সী ছেলের সঙ্গে মেয়ের সম্পর্ক কোনো ভাবেই মেনে নিতে পারেননি বাবা। এ কারণে নিজের মেয়েকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে এক বাবা।ভারতের রাজস্থানের শ্রীগঙ্গানগর জেলার অনুপগড়ে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে।

 

 

 

 

জানা গেছে, পরিবারের সম্মান রক্ষায় নিজের মেয়েকে নির্মমভাবে খুন করেছে বলে স্বীকার করেছে অভিযুক্ত বাবা বলবীর সিং।

 

 

 

 

 

পুলিশ জানায়, ঘটনাটির সূত্রপাত হয় অভিযুক্তের কন্যার প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে। ২০ বছরের ওই তরুণীর কমবয়সী একটি ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয়। ছেলের বয়স কম হওয়ায় ওই সম্পর্ক মেনে নেয়নি মেয়েটির বাবা বলবীর সিং।

 

 

 

 

 

মেয়ের এই প্রেম নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ঝগড়া-বিবাদ চলছিল বাবার সঙ্গে। পরিবারের আপত্তি থাকা সত্ত্বেও প্রেমিকের সঙ্গে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায় (বর্তমানে মৃত) ওই তরুণী। এ কারণে মেয়ের ওপর অত্যন্ত ক্ষেপে যান হয়েছিল বলবীর সিং।

 

 

 

 

 

 

এ নিয়ে থানায় অভিযোগও দায়ের করেছিল। যদিও পরে দুই পরিবারের পক্ষ থেকে এ বিষয়টি মীমাংসা করা হয়। তখন তাদের বিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

 

 

 

 

 

শুরু থেকেই বলিবীর সিং কম বয়সী ছেলের সঙ্গে নিজ মেয়ের বিয়ে দেয়া নিয়ে আপত্তি ছিল। সেই রাগ-ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে গত শনিবার ভোরের দিকে। নিজের মেয়েকেই কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে খুন করে ওই বাবা।

 

 

 

 

 

এ ঘটনার পর অভিযুক্তকে বলিবীর সিং কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য একাধিক ধারায় রুজু হয়েছে মামলা।