প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     রাশিয়া বিশ্বকাপ উন্মাদনায় মাতছে গোটা পৃথিবী। প্রিয় দলগুলোর ভক্তদের অদ্ভুত কাণ্ড দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। রাশিয়ায় এবার একদল ব্রাজিল সমর্থকদের কৌটূক্তির শিকার হলেন এক রাশিয়ার নারী।

 

 

 

 

একদল ব্রাজিলিয়ান ওই রাশিয়ান নারীকে ঘিরে আনন্দ উদযাপন করতে দেখা যায়। এসময় তারা যা বলেন তা ওই সুন্দরীকে নিয়ে অশ্লীল ইঙ্গিত বহন করে। রাশিয়ান নারী আসলে তাদের ভাষা বোঝেননি। যার কারণে তিনিও এই ‘অশ্লীল আনন্দে’ শামিল হয়েছেন। এ ঘটনার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

 

 

 

 

 

ইন্সটাগ্রামে এই ভিডিওতে ১৫ হাজার মন্তব্য পড়েছে। একজন রাশিয়ান নারীকে ঘিরে রয়েছেন বেশ কয়েকজন ব্রাজিলিয়ান। তারা উৎসব পালনের মেজাজে দুটো শব্দ বলছেন যার মাধ্যমে ওই নারীকে নিয়ে অশ্লীল মন্তব্য করা হচ্ছে।

 

 

 

 

 

ভিডিও দেখে চিহ্নিত করা হয়েছে তাদের। একজন এদুয়ার্দো নুনেস, যিনি পুলিশে চাকরি করেন। তার বিষয়ে ইতিমধ্যে ব্রাজিলে তদন্ত শুরু হয়েছে। আরেকজন ব্রাজিলের সাবেক ক্রীড়া বিষয়ক কর্মকর্তা ভ্যালেনসা জাতোবা।

 

 

 

 

 

ইতিমধ্যে তাকে বর্তমান চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। বাকিদের স্টেডিয়ামে প্রবেশের অনুমতিপত্র বাতিল করা হয়েছে। সেখানে এক প্রকৌশলী লুসিয়ানো গিলকেও চিহ্নিত করা হয়েছে। পরে তিনি ক্ষমা চেয়ে জানিয়েছেন, আসলে চা খেতে খেতে অতি উৎসাহের বশে এমনটা করে ফেলেছেন তারা।

 

 

 

 

 

ব্রাজিলের মিডিয়া কম্পানি ইউওএল জানায়, ঘটনাটি রাশিয়ায় ঘটেছে। এ কারণে বিষয়টি সবার নজরে পড়েছে। যদি কোনো উৎসব বা কার্নিভালে এমনটা ঘটতো তবে কেউ ভ্রূক্ষেপ করতো না।

 

 

 

 

 

 

প্রকৌশলী ওই নারীর বিষয়ে বলেন, আমি তাকে জোর করে এমনটা করিনি। অন্যান্য রাশিয়ান নারীদের মতো তিনিও দারুণ প্রাণবন্ত ছিলেন। তিনি নিজেও কখনো এমন পার্টিতে অংশ নেননি।

 

 

 

 

 

 

ভিডিওতে আরো ছিলেন ফেলিপে উইলসন। তাকেও চাকরিচ্যুত করেছে লাটাম এয়ারলাইন্স। প্রতিষ্ঠানের মূল্যবোধ নষ্টের অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে। ইউওএল এর কাছে তার অভিযোগ, আসলে সবাই উৎসবের মেজাজে ছিলো। কিন্তু এর জন্যে আমার জীবনে এমনটা ঘটবে তা আশা করিনি।

 

 

 

 

 

 

আরেকটি ভিডিওতে দেখা গেছে, এক ব্রাজিলিয়ান পুরুষ রাশিয়ান বাচ্চাদের আপত্তিকর বিষয় শেখাচ্ছেন। এ ঘটনায় আরেক রাশিয়ান অ্যালিনা পোপোভা তার শাস্তি চেয়ে পিটিশন করেছেন। তার সে আবেদনে ৩৫ হাজার মানুষের স্বাক্ষর পড়েছে।