প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    ভালোমন্দ বুঝে ওঠার আগেই অল্পবয়সী ছেলেমেয়েরা পর্ন ছবি দেখতে শুরু করে। তবে নিয়মিত পর্ন দেখার ফলে অজান্তেই মস্তিস্ক থেকে শুরু করে শরীর কিছু অদ্ভূত পরিবর্তন হয়ে থাকে, যা পরবর্তীতে ব্যক্তিগত জীবনকে ভয়াবহভাবে প্রভাবিত করে থাকে।

 

 

 

 

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, পর্ন দেখার কারণে একজন ব্যক্তি শরীরে পাঁচ ধরনের পরিবর্তন হতে পারে। চলুন তাহলে দেখে নেওয়া যায় পরিবর্তনগুলো…

 

 

 

 

১. পর্ন দেখার সবচেয়ে বেশি প্রভাব মস্তিস্কের উপর পড়ে। কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরোসাইকাট্রিস্ট ডাক্তার ভ্যালেরি ভুন জানান, অতিরিক্ত পর্ন মস্তিস্কের উপরে এমন প্রভাব ফেলে, যা ড্রাগ আসক্তির থেকে কোনো অংশেই কম নয়।

 

 

 

 

২. একজনের একাধিক অভ্যাস আস্তে আস্তে বদলে দিতে পারে পর্ন। নিয়মিত ও অতিরিক্তমাত্রায় পর্ন দেখলে শরীরে হেলুসিনেশন কাজ করতে পারে। যার ফলে যে কোনো বস্তু, বিষয় বা নাম মস্তিস্কে ধরে রাখতে অনেক সময় লাগবে।

 

 

 

 

 

৩. পর্ন দেখলে খুব স্বাভাবিকভাবেই একজন উত্তেজিত হতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনার সঙ্গীকে অন্যভাবে কল্পনা করে থাকবেন। এমন অবস্থায় পৌঁছলে খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রিয়জনের সঙ্গে আপনার দূরত্ব তৈরি হবে।

 

 

 

 

৪. গবেষণায় দেখা গেছে, অতিরিক্ত পর্ন দেখার প্রবণতা ভয়ঙ্করভাবে মানুষের স্মৃতিশক্তির উপর প্রভাব ফেলে। অনেক সামান্য বিষয়ই তখন মাথা থেকে বেরিয়ে যেতে পারে। কারণ পর্ন যে পরিমাণে স্নায়ুকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং এর উপর চাপ সৃষ্টি করে চলে, তাতে স্মৃতির ক্ষতি হতে পারে।

 

 

 

 

 

৫. নিয়মিত পর্ন দেখতে শুরু করলে একটা নির্ভরশীলতা তৈরি হতে শুরু করে। শারীরিক কোনো চাহিদা তৈরি না হলেও একটা নির্দিষ্ট সময় অন্তর শরীর উত্তেজিত হতে চাইবে।

 

 

 

 

 

 

অর্থাৎ,পর্ন দেখা এমন এক অভ্যাসে পরিণত হবে, যার ফলে নিজের শরীর ও মনের উপর একজন চাইলেও আর কোনো ভাবেই নিয়ন্ত্রিত করতে পারবে না।