প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     দিন যত এগুচ্ছে, তৈরি হচ্ছে নানা প্রযুক্তির স্মার্টফোন। এমনকি সেয়ানে সেয়ানে টক্কর হচ্ছে এ ধরনের মুঠোফোন প্রস্ততকারক কোম্পানিগুলোর মধ্যে। তবে বাড়ছে নানা সমস্যাও।

 

 

 

 

কাজের ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হলেও ভারী কাজের কারণে অনেক সময় এ ধরণের ফোনগুলো নিজেদের গতি কমিয়ে দেয়। অনেক সময় ফোনটির ব্যাটারিতে সমস্যা দেখা দেয়।

 

 

 

 

 

মোবাইলের অ্যাপ আপডেট, মেমারি স্টোরেজ, ব্যাকগ্রাউন্ড সেটাপসহ নানা ধরনের সমস্যায় পড়তে হয়। সমস্যা হলে আছে সমাধানও। আসুন জেনে নেওয়া যাক এ ধরণে সমস্যায় পড়লে কিভাবে এর সমাধান করবেন :

 

 

 

 

 

সিস্টেম ও অ্যাপ আপডেট
স্মার্টফোনের অপারেটিং সিসটেম আপডেট রাখা অত্যন্ত জরুরি। কেননা একটি স্মার্টফোনের মূল চালনা শক্তিই হল অ্যাপলিকেশন। তাই ফোনটিকে সচল রাখতে এই অ্যাপলিকেশন বা অ্যাপগুলো আপডেট রাখা বাঞ্ছনীয়।

 

 

 

 

আপনি যে কোম্পানির স্মার্টফোনই ব্যবহার করেন না কেন, প্রত্যেকটি কোম্পানি থেকেই আপনার ফোনে অপারেটিং সিস্টেম আপডেট করার নোটিফিকেশন দেওয়া হয়।

 

 

 

 

সেখান থেকেই আপনার মোবাইলের অ্যাপ আপডেট করতে পারবেন সহজেই। সিস্টেম ও অ্যাপ আপডেট থাকলে আপনার মোবাইল গতিহীন হওয়ার সম্ভবনা কমে যাবে অনেকটাই।

 

 

 

 

পুরোনো ব্যাটারি
স্মার্টফোনের ব্যাটারি অনেক দিনের পুরোনো হলে অনেক সময়ে ফোন ধীর গতিতে কাজ করে। গরমও হয়ে যেতে পারে আপনার পছন্দের ফোনটি। এমনকি নষ্টও হয়ে যেতে পারে ফোনটি।

 

 

 

 

তাই ব্যাটারি পুরোনো হয়ে গেলে দেরি করবেন না। পরিবর্তন করে ফেলুন মোবাইলের ব্যাটারিটি। পরিপূর্ণ মেমারি স্টোরেজ স্মার্টফোনে অতিরিক্ত অ্যাপ, ছবি, গান, ভিডিও রাখলে মোবাইল ফোনের মেমোরি ভর্তি হয়ে যায়।

 

 

 

 

 

আজকাল স্মার্টফোনেরা ধারণ ক্ষমতা বাড়াতে বেশি মেমেরি দেওয়া হলেও পছন্দনীয় প্রয়োজনগুলোর অতিরিক্ত মাত্রার কারণে ডিডভাইসের স্পেস শেষ হয়ে যায়।

 

 

 

 

 

এতে মোবাইলের র‌্যামেও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফোনও ধীর গতিতে কাজ করে। তাই এই সমস্যা এড়াতে আপনার মোবাইল থেকে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ, গান, ছবি, ভিডিও বা অন্য কোনও ফাইল ডিলিট করুন।

 

 

 

 

 

ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ
মোবাইলে আগে থেকে দিয়ে দেওয়া বিভিন্ন রকপ অ্যাপ অনেক ব্যবহারকারীর পছন্দ হয় না। যারা অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে তারা অনেক সময় মোবাইলে এইচডি (HD) ওয়াল পেপার ব্যবহার করেন।

 

 

 

 

এটিও অন্যতম কারণ মোবাইল ফোন ধীর গতিও হওয়ার। কেননা, সব স্মার্টফোনেই একটি সীমিত মেমারি কিংবা র্যা ম থাকে। অতিরিক্ত অ্যাপ ফোনে রাখায় তার জায়গা কমে। এতে ফোন স্লো হয়ে যায়।

 

 

 

 

 

 

তাই এ সমস্যাগুলো থেকে দুরে থাকতে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপগুলো সরিয়ে ফেলুন। প্রয়োজনীয় অ্যাপ ডাউনলোড করে রাখুন। এতে আপনার ফোন ভালো থাকবে।