প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      টেস্ট হারের ক্ষত কতটা শুকিয়েছে সাকিবদের? এন্টিগায় প্রথম টেস্টে লজ্জাজনক হারের পর জ্যামাইকাতেও একই হাল। সব মিলে গোটা দলের লক্ষ্য এখন একটা ম্যাচ জিতে ঘুরে দাঁড়ানো।

 

 

 

 

এর আগে ২০১৪ সালে ক্যারিবীয় সফর করেছিল বাংলাদেশ। ওই সিরিজে দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডের সবকটিতেই হারতে হয়েছিল মাশরাফি-মুশফিকদের।

 

 

 

 

 

ওয়েস্ট ইন্ডিজ যেন বাংলাদেশের জন্য অপয়া ভেন্যু। তা না হলে আগে পরে একই হাল কেন।যাই হোক ইতিহাস ঘেঁটে তো আর মাঠের খেলা হয়না। তাই ম্যাচ সামনে রেখে নামতে হবে নতুন উদ্যমে, নতুন কৌশল নিয়ে।

 

 

 

 

 

দলে ফিরেছেন ওয়ানডে দলের নিয়মিত অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। স্ত্রীর অসুস্থতার কারণে এই সিরিজে তারও যাওয়ার কথা ছিল না। শেষ পর্যন্ত সেই স্ত্রীর দেয়া সাহসেই ক্যারিবীয় দ্বীপের পথ ধরেছিলেন মাশরাফি।

 

 

 

 

 

দলনেতাকে পাওয়া নিশ্চয় বাড়তি বাড়তি অনুপ্রেরণা হিসেবেই কাজ করবে এমন সময়ে।বাড়তি পাওয়া দলে ফিরেছেন মুস্তাফিজুর রহমান। চোটের কারণে টেস্ট সিরিজ খেলতে না পারলেও আশা করা হচ্ছে প্রথম ওয়ানডেতেই নামছেন কাটার মাস্টার।

 

 

 

 

 

 

আরেক পেসার রুবেল হোসেনকে নিয়ে গণমাধ্যমে কম গুঞ্জন উঠেনি প্রথম টেস্টের পর। রুবেল নাকি সতীর্থদের সাথে বিদ্রুপ আচরণ করেছেন। কথা উঠেছিল দেশে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে তাকে।

 

 

 

 

কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর দেশে ফিরিয়ে না দিয়ে ওয়ানডের জন্য প্রস্তুতি ম্যাচে খেলানো হয়েছিল। ওই ম্যাচেই বাজিমাৎ রুবেলের। ৯ ওভারে ৪০ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। রুবেলের আশার পালে হাওয়া লাগার মতোই ব্যাপারটা।

 

 

 

 

ধরা হচ্ছে প্রথম ওয়ানডেতে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে তিন পেসার নিয়েই মাঠে নামবে টাইগাররা।একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে মোসাদ্দেক হোসেনের অসাধারণ বোলিং বাড়তি অনুপ্রেরণা বলা চলে। ওই ম্যাচে ১০ ওভারে মাত্র ১৪ রানে ৪ উইকেট নেন এই অলরাউন্ডার।

 

 

 

 

মুশফিকের ব্যাটে আসে রান। যা দুই টেস্টের মুশফিক আর ওয়ানডের মুশফিককে আলাদা করেছে সহজেই।তিন পেসার নিয়ে যদি একাদশ সাজানো হয় তাতে অনেকটাই নিশ্চিত হওয়া যায় মাশরাফি, মুস্তাফিজ ও রুবেল নিশ্চিত।

 

 

 

 

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত ৭টি ওয়ানডে সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। এরমধ্যে ৫টিতে জয় পেয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাকি দুটিতে জিতেছে বাংলাদেশ।

 

 

 

 

 

এছাড়াও ২৮ বারের দেখায় ১৯ ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ৭ ম্যাচে জয় পায় বাংলাদেশ।ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর মতে টাইগারদের সেরা একাদশে থাকতে পারে

 

 

 

 

তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহিম (উইকেট কিপার), সাকিব আল হাসান, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী মিরাজ, মাশরাফি মর্তুজা (অধিনায়ক), রুবেল হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান।

 

 

 

 

 

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সম্ভাব্য একাদশ
ক্রিস গেইল, এভিন লুইস, শাই হোপ (উইকেট কিপার), কিরন পাওয়েল, শিমরন হেটমেয়ার, জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক), রবম্যান পাওয়েল, আন্দ্রে রাসেল, দেবেন্দ্র বিষু, কেমো পল ও আলজারি জোসেফ।