প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী ও ছাত্র ফেডারেশনের বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক রাকিবুল রাকিবকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করা হয়েছে। এতে তার নাক ফেটে গেছে।রবিবার (২২ জুলাই) দুপুর ১টার দিকে ক্যাম্পাসের নতুন ভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

 

 

 

 

জানা যায়, নৃবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্র রাকিব সেখানে দাঁড়িয়েছিলেন। এমন সময় কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী তাকে ডাকেন। তিনি এগিয়ে গেলে তাকে কয়েকজন মিলে বেধড়ক পেটাতে থাকেন।

 

 

 

 

আহত অবস্থায় সহপাঠীরা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে সেখান থেকে চিকিৎসা নিয়ে তিনি সন্ধ্যায় বাসায় ফিরে যান।

 

 

 

 

রাকিবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি এখন শারিরীকভাবে খুব দুর্বল কিন্তু মানসিকভাবে ঠিক আছি। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হিসাবে এই ধরনের হামলা মেনে নেওয়া যায় না।

 

 

 

 

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে অভিযোগ দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে রাকিব বলেন, আমরা আগামীকাল লিখিত অভিযোগ দিব। আশা করি প্রশাসন সঠিকভাবে বিচার করবে যাতে পরবর্তীতে এই ধরনের হামলা আর না হয়।

 

 

 

 

তিনি আরও জানান, হামলাকারীরা বলছিলো ‘তুই ছাত্র ফেডারেশন করিস। তোদের এতো সাহস প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে সমালোচনা করিস। একেবারে নাক ফাটিয়ে দেবো।’

 

 

 

 

রাকিব বলেন, মূলত ‘কোটা সংস্কার আন্দোলনের থাকা এবং প্রগতিশীল ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট হওয়ার কারণেই তারা আমার ওপর হামলা হয়েছে বলে জানায় সে।’

 

 

 

 

 

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে জবি প্রক্টরড. নূর মোহাম্মদ বলেন, ‘আমি শুনেছি একজন ছাত্রের উপর হামলা হইছে, আমি বলে দিয়েছি চিকিৎসা করাতে পরবর্তীতে লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়টার সমাধান করা হবে।’