প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগে ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে বলে সতর্ক করেছে আবহাওয়া অধিদফতর। আর অতিভারী বর্ষণের কারণে সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগে পাহাড় ধসেরও আশঙ্কা রয়েছে।
মঙ্গলবার আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ মুহাম্মদ আরিফ হোসেন এ আশঙ্কার কথা জানান।
এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ মুহাম্মদ আরিফ হোসেন জানিয়েছেন, মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকার কারণে বেলা ১১টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও দমকা হাওয়াসহ ভারী (৪৪-৮৮ মি.মি.) থেকে অতিভারী (৮৯ মি.মি.) বর্ষণ হতে পারে।
তিনি আরো জানান, ‘অতিভারী বর্ষণের কারণে সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে’।
আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, উত্তরপশ্চিম ঝাড়খণ্ড এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে উত্তর-পশ্চিম মধ্য প্রদেশ এবং তৎসংলগ্ন উত্তর প্রদেশে অবস্থান করছে।
মৌসুমি বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ রাজস্থান, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে উত্তরপূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বির্স্তত রয়েছে।
দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের উপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে। অতিভারী বর্ষণের ফলে বন‍্যার পানিতে চট্টগ্রাম নগরীর মানুষের জনদুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে।
এদিকে বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকায় গরম অনুভূত হচ্ছে বেশি। সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৯৭ শতাংশ। রাতে এবং সকালে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাত হয়েছে।
সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় ৫৫ মি.লি., ময়মনসিংহে ৩৫ মি.লি., চট্টগ্রামে ৭১ মি.লি., সিলেটে ৩৩ মি.লি., খুলনায় ৫৩ মি.লি., বরিশালে ১৮ মি.লি., রংপুরে ৯ মি.লি., রাজশাহীতে ৩ মি.লিসহ দেশের সবগুলো পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। দেশের সর্বোচ্চ ১১০ মি.লি. বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ফেনীতে।
পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, এই সময়ের মধ্যে পরিস্থিতির সামান্য পরিবর্তন হতে পারে।
অন্যদিকে বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রা কমতে শুরু করেছে। তেঁতুলিয়ায় ৩৪ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিলো দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। আর ঢাকায় ৩২ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদফতর।