প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, বর্তমান সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপের ফলে শিক্ষা খাতে ব্যাপক উন্নতির পাশাপাশি বাংলাদেশে নারী শিক্ষার প্রসার সারাবিশ্বের প্রশংসা কুড়িয়েছে। এ ক্ষেত্রে আমরা সার্কভুক্ত দেশগুলোর চেয়ে এগিয়ে আছি বলেও জানান তিনি।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, সরকারের গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগের ফলে শিক্ষা ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব পরিবর্তন এসেছে। শিক্ষায় বিনিয়োগ বৃদ্ধি পেয়েছে। শিক্ষাবান্ধব সরকার উচ্চশিক্ষার চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে অনেকগুলো সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের অনুমতি দিয়েছে এবং এগুলোর গুণগত মান ধরে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

 

 

 

 

 

আজ সোমবার রাজধানীর বসুন্ধরা কনভেনশন সিটিতে প্রাইম এশিয়া ইউনিভার্সিটির তৃতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি হিসেবে সভাপতির বক্তৃতায় এ সব কথা বলেন তিনি।

 

 

 

 

 

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান, প্রাইম এশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান এম এ খালেক ও উপাচার্য ড. আবদুল হান্নান চৌধুরী বক্তব্য রাখেন। বাংলাদেশে কানাডার হাইকমিশনার বেনওয়া প্রিফন্টেন সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

 

 

 

 

নাহিদ বলেন, সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে আমরা পার্থক্য করি না। তারা সকলেই আমাদের সন্তান এবং জাতির ভবিষ্যৎ।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এখনও ন্যূনতম শর্ত পূরণ করতে পারেনি। এ ভাবে তারা বেশী দিন চলতে পারবে না। ব্যবসা ও মুনাফার চিন্তা ত্যাগ করে জনকল্যাণ, সেবার মনোভাব ও দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে তাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী।

 

 

 

 

 

 

নুরুল ইসলাম নাহিদ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কর্তৃপক্ষকে দেশের বাস্তবতা এবং জনগণের আর্থ-সামাজিক অবস্থা বিবেচনা করে শিক্ষার্থীদের ভর্তি ও টিউশন ফি নেয়ার অনুরোধ জানান।

 

 

 

 

 

 

সমাবর্তনে ৫ হাজার ৮৫৬ জন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীকে ডিগ্রি প্রদান করা হয়। ৬ জন শিক্ষার্থীকে চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক, ৫ জনকে ভাইস চ্যান্সেলর ও ৪ জনকে চেয়ারম্যান স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়।