প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     অনেকে মুরগীর চামড়া খেতে চান না, তারা ভাবেন এটা খাওয়া ঠিক হবে কি? আবার অনেকে এটাকে খুব সুস্বাদু খাবার হিসেবেই মনে করেন। বিজ্ঞানীরা বলছেন, মুরগীর চামড়া খাওয়া ভালো।

 

 

 

 

 

 

বেশীরভাগ মানুষই মনে করেন যে, মুরগীর চামড়া খেলে রক্তচাপ বৃদ্ধি পায়, কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি পায় এমনকি হৃদরোগের ঝুঁকিও বৃদ্ধি করে। কিন্তু যদি আপনি মুরগীর চামড়া সীমিত পরিমাণে খান তাহলে তা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হবেনা। এর কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতাও আছে।

 

 

 

 

 

১। ১ আউন্স মুরগীর চামড়ায় ৮ গ্রাম অসম্পৃক্ত চর্বি এবং ৩ গ্রাম সম্পৃক্ত চর্বি থাকে।

 

 

 

 

 

২। মুরগীর চামড়ায় মনোআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকে (অলেইক এসিড)। মধ্যম মাত্রার মনোআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট কোলেস্টেরলের মাত্রাকে কমাতে পারে। তাই এটি স্ট্রোক এবং হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকিও কমাতে পারে। এটি হরমোনকে নিয়ন্ত্রণ করতেও সাহায্য করে।

 

 

 

 

 

 

৩। আপনি কী ক্যালোরি নিয়ে চিন্তা করছেন? চামড়া ছাড়া মুরগীর মাংস ও চামড়াযুক্ত মুরগীর মাংসের মধ্যে তেমন কোন পার্থক্য নেই। সামান্য কিছু ক্যালোরি শুধু বেশি থাকে চামড়াযুক্ত মুরগীর মাংসে।

 

 

 

 

 

 

৪। মুরগীর চামড়ার আরেকটি সুবিধা হচ্ছে রান্নার সময় চামড়াসহ মুরগীর মাংস কম তেল শোষণ করে। অন্যদিকে চামড়াহীন মুরগীর মাংস বেশি তেল শোষণ করে।

 

 

 

 

 

৫। কিন্তু অনেকবেশি মুরগীর চামড়া খাওয়া কী ভালো? না, অধিক চামড়া খাওয়া ভালো নয়। কারণ এর ফলে ইনফ্লামেশন হতে পারে। তাই খেতে হবে সীমিত পরিমাণে।

 

 

 

 

 

 

৬। চামড়াসহ মুরগীর মাংস ক্ষুধা নিবারণে সাহায্য করে বেশি। কিছু ক্ষেত্রে এটি চিনি গ্রহণের প্রবণতাও কমায়।

 

 

 

 

 

 

 

৭। চামড়া সহ মুরগীর মাংস খেলে তা ভাজা উচিৎ নয়। চামড়া ভাজলে শুষ্ক ও কুড়কুড়ে হয়ে ভেঙ্গে যায়। এতে পুষ্টির পরিমাণ কমে যায় এবং তা স্বাস্থ্যের জন্যও ক্ষতিকর।