প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:        তুমি একজন পাকিস্তানি, তাই দাড়ি কাটো নি! এই অভিযোগে এই মুসলিম যুবককে জোর করে সেলুনে নিয়ে যাওয়া হল। মারধর করে দাঁড়ি কাটতেও বাধ্য করা হল।

 

 

 

 

 

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের হরিয়ানার গুরুগ্রামে। ইতিমধ্যে সেক্টর ৩৯–এর পুলিশ স্টেশনে অভিযোগ দায়ের করেছেন জাফারুদ্দিন হামিদ নামে ওই যুবক।

 

 

 

 

 

অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন, ঘটনার সময় আচমকাই কয়েকজন দুষ্কৃতি তাঁকে ঘিরে ধরে। কেন তিনি দাঁড়ি রেখেছেন? সেই প্রশ্ন করে।

 

 

 

 

তারপর নিজেরাই বলে, ‘তুমি একজন পাকিস্তানি, তাই দাড়ি কাটো নি। ’ এরপরই জাফারুদ্দিনকে জোর করে একটি সেলুনে নিয়ে যায় তারা।

 

 

 

 

 

কিন্তু সেলুনের কর্মচারী জানান, এভাবে জোর করে ধরে আনা কারোর দাঁড়ি তিনি কাটবেন না। এরপর ওই দুষ্কৃতিরা দু’জনকেই মারধর করে। শেষে চেয়ারের সঙ্গে জোর করে জাফারুদ্দিনকে বেঁধে দেয় তারা।

 

 

 

 

 

তারপর ওই কর্মচারীকে জাফারুদ্দিনের দাঁড়ি কাটতে বাধ্য করে। মেওয়াটের বাদলি এলাকার বাসিন্দা আক্রান্ত জাফারুদ্দিন এরপরই পুলিশে অজ্ঞাত পরিচয় যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যে তদন্তও শুরু করেছে পুলিশ।‌‌