প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:        ভারতীয় এক পরিবার কারো সহায়তা ছাড়া নিজেদের বাড়িতেই সন্তান জন্মদানের সিদ্ধান্ত নেন। এজন্য ইউটিউবের ভিডিওর সহায়তা নেন তারা। এরপর সন্তান ভূমিষ্ঠ করানো সম্ভব হলেও পরবর্তীতে ওই প্রসূতি মায়ের মৃত্যু হয়েছে।

 

 

 

 

 

 

মূলত প্রাকৃতিক উপায়ে সন্তান জন্ম দিতে বাড়িতেই প্রসবের সিদ্ধান্ত নেন ওই দম্পতি। কার্ত্তিকেয়ান ও কৃতিগা নামক ওই দম্পতির দুজনেই বেসরকারি বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন।

 

 

 

 

 

ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের তিরুপ্পুরে এ ঘটনা ঘটেছে। রোববার দুপুরে ২৮ বছরের কৃতিগার প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়। এর পর স্বামীর সহায়তায় দুপুর দেড়টায় বাড়িতেই তিনি সন্তান প্রসব করেন। এতে ব্যাপক রক্তক্ষরণ হলে ঘণ্টাখানেক পর কৃতিগা বারবার অজ্ঞান হতে শুরু করেন।

 

 

 

 

এরপর তার স্বামী ১০৮ নম্বরে ডায়াল করে অ্যাম্বুলেন্স ডেকে আনেন। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। হাসপাতালে তিনি মারা যান।

 

 

 

 

তিরুপ্পুরের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কে বুপথি জানান, প্রসবের সময় কৃতিগার প্রচুর রক্তক্ষরণ হয় এবং তার ফলে তিনি প্রচণ্ড মানসিক আঘাত পান। তার পরেই তিনি মারা যান।

 

 

 

 

 

 

তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা জেয়াচন্দ্রন বলেন, তারা প্রত্যেকে প্রাকৃতিক উপায়ে প্রসবের পক্ষপাতিত্ব করতেন এবং ওই নারী গর্ভাবস্থায় কোনো দিন ডাক্তারের পরামর্শ নিতে বা হাসপাতালে যাননি।

 

 

 

 

 

 

প্রবীণ ও লাবণ্য আরও বেশ কিছু দম্পতিকে বাড়িতে সন্তান প্রসবে সহায়তা করেছেন বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ। এ ঘটনায় সে নারীর স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ।