প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:        আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ‘ঈশ্বর’ মনে করেন ভারতের তেলেঙ্গানার জনগাঁও জেলার কন্নে গ্রামের কৃষক বুসা কৃষ্ণা। এই কৃষক ঠাকুরঘরের সিংহাসনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছবি রেখে নিত্য পুজো করেন।

 

 

 

 

 

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে আমেরিকা প্রবাসী ভারতীয় সফট্ওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার শ্রীনিবাস কুচিভোটলা খুন হওয়ার পর থেকেই ট্রাম্পের পুজো শুরু করেন ৩১ বছর বয়সী এই যুবক।

 

 

 

 

 

একে তো ট্রাম্পের ভক্ত বুসা। তার ওপর এই ঘটনার পর তিনি মনে করেন, ভালোবাসা দিয়েই জয় করা যায় সব হিংসাকে। বুসার দাবি, ভারতীয় সংস্কৃতি, ভারতীয়দের অহিংস নীতিতে ভর করেই ট্রাম্পকে তার সিংহাসনে ঠাঁই দিয়েছেন তিনি।

 

 

 

 

 

 

দুইবেলা ট্রাম্পের ছবির সামনে রীতিমতো ঘণ্টা নাড়িয়ে আরতি, মন্ত্রপাঠ করেন এই যুবক। বিশ্বাস, তার আরাধ্য দেবতা দূরে থেকেও এ সব টের পান। শুধু তা-ই নয়, এতে তুষ্টও নাকি হন তিনি! তার ‘ভগবানকে’ ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচয় করাতে এই উপায়ই বের করেছেন বুসা।

 

 

 

 

নিজের ফেসবুকে রোজ ট্রাম্পকে পুজোর ছবি পোস্ট করেন বুসা। যদিও সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, ট্রাম্প সম্পর্কে সেভাবে কিছুই জানেন না। তবে এটুকু মানেন যে, ট্রাম্প এই মুহূর্তে বিশ্বের প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের মধ্যে অন্যতম।

 

 

 

 

তবে ট্রাম্পের কেবল মানসিক দৃঢ়তাই নয়, ওয়ার্ল্ড রেসলিং এন্টারটেনমেন্টে (ডব্লিউ ডব্লিউ ই) ট্রাম্প অংশ নেওয়ার পর থেকে তার শারীরিক শক্তি নিয়েও দরাজ প্রশংসা করেন এই কৃষক।

 

 

 

 

 

 

 

ট্রাম্প নিয়ে বুসার এই বাড়াবাড়ি মোটেই ভালো চোখে দেখেনি তার পরিবার। বন্ধুমহলেও হয়েছেন ঠাট্টার পাত্র। মানসিক বিকারগ্রস্ত ঠাউরে তাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়েও দেয়া হয়েছে বহুবার। তবু কারো কথাই কানে তোলেননি এই কৃষক। আজও তিনি অনড় তার জেদে।