প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় আন্দোলনরত ছাত্রদের দাবির প্রতি সাকিব, রুবেলের পর এবার একাত্মতা প্রকাশ করেছেন তাসকিন।

 

 

 

 

গত রোববার সড়ক দুর্ঘটনায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী দিয়া খানম ও আব্দুল করিম নিহত হন। এরপর ঢাকাসহ সারাদেশের ছাত্র-ছাত্রীরা ৯ দফা দাবিতে আন্দোলনে নেমেছে। গত কয়েকদিন ধরেই চলে আসছে এই আন্দোলন।

 

 

 

 

 

এই দাবির সঙ্গে একাত্মতা করেছেন সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ। বাদ যায়নি বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যরাও।

 

 

 

 

 

গত ৩০ জুলাই পেসার রুবেল হোসেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লেখেন সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ে। এরপর আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে মন্তব্য করেন টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

 

 

 

 

 

আয়ারল্যান্ডের ডাবলিনে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের সাথে রয়েছেন আরেক পেশার তাসকিন আহমেদ। সাকিবের পর তাসকিনও লেখেন সাম্প্রতিক ঘটনা নিয়ে।

 

 

 

 

 

 

২৩ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার লেখেন, আসসালামু আলাইকুম। আশা করি ভালো আছেন সবাই।আমি এখন বাংলাদেশ “এ” দলের হয়ে আয়ারল্যান্ডে অবস্থান করছি। আমি আমার ইয়াং ফ্যানসদের উদ্দেশ্যে কিছু বলতে চাই।

 

 

 

 

 

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় দুই স্কুল শিক্ষার্থী দিয়া ও আবদুল করিম নিহত হওয়ার খবরের ঘটনায় আমি অনেক মর্মাহত ছিলাম।

 

 

 

 

 

ব্যাপাটি আমার খুব খারাপ লাগে, কিন্তু যখন দেখলাম তার সহপাঠী থেকে শুরু করে সারাদেশের ছাত্রছাত্রীরা দোষীদের শাস্তি দাবি ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছে, তখন গর্ববোধ করেছি।

 

 

 

 

আমি যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে দেখেছি, তারা কিভাবে আমাদের কিছু ভুল ভ্রান্তি চোখে দেখিয়ে দিয়েছে৷ আমাদের প্রত্যেক নাগরিকের উচিত আইন মেনে চলা। আমি তোমাদের সাধুবাদ জানাই এবং আশা করি নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়নে কর্তৃপক্ষ যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

 

 

 

 

 

 

এর মাধ্যেমে খুব দ্রুত সমাধান হবে। সুশৃঙ্খল ও সুন্দর বাংলাদেশ কামনা করি। বাংলাদেশের সকলের জন্য রইলো দোয়া ও ভালোবাসা।