প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলমান ছাত্র আন্দোলনের বিষয়ে বিএনপি নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গে টেলিফোনে কথোপকথনের অভিযোগে ব্যারিস্টার মিলহানুর রহমান নাওমিকে কুমিল্লার বরুড়া থেকে উঠিয়ে নেয়ার অভিযোগ করেছে পরিবারের সদস্যরা।

 

 

 

 

 

আজ রোববার ভোরে জেলার বরুড়া উপজেলার দেওরা গ্রামের নাওমির ফুফুর বাড়ি থেকে তাকে আটক করা হয়। তবে কুমিল্লার পুলিশ এ বিষয়ে কিছু জানে না বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছে।

 

 

 

 

 

নাওমির বাবা কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর সিদ্দিকুর রহমান সুরুজ জানান, আজ ভোরে ঢাকা থেকে আসা ডিবি পুলিশ নাওমির মামা মঞ্জুর আলম ও চাচা ফরিদুর রহমানকে নিজ বাড়ি নগরীর উনাইসার থেকে নাওমির খোঁজে বরুড়ায় নিয়ে যায়। সেখান থেকে নাওমিকে আটক করে ঢাকায় নিয়ে যায়।

 

 

 

 

 

নাওমির বাবা তার ছেলেকে নির্দোষ দাবি করেন এবং সে দেশের রাজনীতির কোন দলের সঙ্গে জড়িত নয় বলে জানান। তিনি বলেন, তার ছেলে ছোট বেলায় পড়াশুনার জন্য বিদেশে চলে যায় এবং লন্ডন থেকে ব্যারিস্টারি পড়া শেষ করে গত ৬ মাস আগে দেশে আসে।

 

 

 

 

 

বিএনপি নেতা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে তার বাসায় তার চাচাতো বোনের বিয়ের দাওয়াত দেয়ার জন্য ফোন করেছিল নাওমি। বাড়তি কথাগুলো সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন বলেও উল্লেখ করেন নাওমীর বাবা।

 

 

 

 

 

 

তিনি আরও জানান, যদি নাওমি অপরাধ করে থাকে তাহলে দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী বিচার করা হোক, তবে তার প্রতি যেন অবিচার করা না হয়।

 

 

 

 

 

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গে এক ছাত্রের অডিও ফোনালাপ ভাইরাল হয়ে দেশজুড়ে ব্যাপক বিতর্কের সৃষ্টি করেছে।

 

 

 

 

 

অডিও ক্লিপটি আন্দোলনের সপ্তম দিন গতকাল শনিবার ফেসবুকে ভাইরাল হয়। ওই অডিওতে নাওমীকে ঢাকায় আন্দোলনে সক্রিয় হতে বলেন আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

 

 

 

 

 

 

এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে নাশকতায় উসকানি ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগে শনিবার রাতে চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন নগর ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর।