প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:        খুলনায় ঈদে ঘরমুখো মানুষের জন্য মাত্র একটি বিশেষ ট্রেন বরাদ্দ দিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। ঈদের একদিন আগে শুধুমাত্র ২১ আগস্ট ঢাকা-খুলনা রুটে চলবে ট্রেনটি। আগে ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপ বিবেচনা করে খুলনায় দুটি বিশেষ ট্রেন ১০ দিন চালু রাখতো রেলওয়ে।

 

 

 

 

 

তাতে প্রতিদিন অতিরিক্ত ৮ শতাধিক যাত্রী আসা-যাওয়া করতে পারতেন। কিন্তু গতবছর থেকে তা বন্ধ করে দেয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এতে দুর্ভোগ বেড়েছে যাত্রীদের। এবারও মাত্র একদিন বিশেষ ট্রেন বরাদ্দ রাখায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন খুলনার নাগরিক নেতারা।

 

 

 

 

 

 

এদিকে খুলনায় ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি কার্যক্রম বুধবার শুরু হয়েছে। এদিন বিক্রি হয়েছে ১৭ আগস্টের টিকিট। কিন্তু অগ্রিম টিকিট কিনতে স্টেশনে তেমন ভিড় দেখা যায়নি।

 

 

 

 

প্রতিদিন পাওয়া যাচ্ছে ৯ দিন আগের টিকিট। অর্থাৎ বৃহস্পতিবার থেকে বিক্রি হবে ১৮ আগস্টের টিকিট। এভাবে ১০, ১১ ও ১২ আগস্টে পর্যায়ক্রমে মিলবে ১৯, ২০ এবং ২১ আগস্টের টিকিট।

 

 

 

 

 

রেলওয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, খুলনা থেকে ঈদের পরের ফিরতি ট্রেনের টিকিটে চাপ বেশি থাকে। এই ফিরতি ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরল্ফম্ন হবে ১৫ আগস্ট। ওই দিন পাওয়া যাবে ২৪ আগস্টের টিকিট। একইভাবে ১৬, ১৭, ১৮ ও ১৯ আগস্ট যথাক্রমে পাওয়া যাবে ২৫, ২৬, ২৭ ও ২৮ আগস্টের টিকিট।

 

 

 

 

 

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ঈদ উপলক্ষে সারাদেশে ৯টি বিশেষ ট্রেন চলবে। খুলনার জন্য রাখা হয়েছে একটি ট্রেন। খুলনা এক্সপ্রেস নামের ওই ট্রেনটি ২১ আগস্ট সকাল ৬টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসবে। একই দিন দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে যাত্রী নিয়ে খুলনা স্টেশন ত্যাগ করবে।

 

 

 

 

 

বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ জামান বলেন, ভাঙ্গাচোরা সড়ক এবং সড়ক পথে অব্যবস্থাপনা ও যানজটের কারণে রেলওয়ের খুলনা-ঢাকা রল্ফম্নট যাত্রীদের কাছে জনপ্রিয়।

 

 

 

 

 

এজন্য ঈদে ট্রেনের ওপর চাপ বাড়ে। ফলে আমরা ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানোর দাবি জানিয়ে আসছি। কিন্তু ঈদে মাত্র একদিন বিশেষ ট্রেনের আয়োজন আমাদের হতাশ করেছে। দ্রুত এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে আগের মতো ১০ দিনে দুটি করে বিশেষ ট্রেন চালানোর দাবি জানাচ্ছি।

 

 

 

 

 

 

এ ব্যাপারে খুলনা রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার জানান, এবার ঈদে মাত্র একদিন বিশেষ ট্রেন চালুর নির্দেশনা এসেছে। সেই ট্রেনে কতো আসন থাকবে, তা এখনো জানা যায়নি।