প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:        প্রকাশ্য যৌনতার যে কতটা ভয়বহ হতে পারে, হারে হারে তা টের পাচ্ছে পশ্চিমা দেশগুলো। আবারো তেমনি একটি নেক্কারজনক ঘটনার সাক্ষী হলো যুক্তরাষ্ট্র। শ্রেণিকক্ষেই মাত্র ১৫ বছর বয়সী এক ছাত্রীর সঙ্গে সমকামী সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন শিক্ষিকা জ্যাকলিন ট্রুম্যান (৩০)।

 

 

 

 

এ খবর প্রকাশ্যে আসার পর পদত্যাগ করেছেন শিক্ষিকা জ্যাকলিন। তিনি ধরা দিয়েছেন পুলিশে। ঘটনাটি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায়। সেখানে ওভিয়েডোতে হগার্টি হাই স্কুলের ক্লাসরুমে অন্য ছাত্রীরা চলে যাওয়ার পর তার শিকারে পরিণত হয়েছিল ওই ছাত্রী।

 

 

 

 

 

 

তাকে আস্তে আস্তে যৌনতায় উত্তেজিত করে তুলতেন তিনি। গত বছর তাদের মাঝে দু’মাস স্থায়ী হয়েছিল এ সম্পর্ক। ঘটনাটি ফাঁস হওয়ার পর সেখানে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। ওই ছাত্রী অবশ্য তদন্তকারীদের কাছে স্বীকার করেছে শিক্ষিকা জ্যাকলিনের সঙ্গে উভয়ের সম্মতিতে এ সম্পর্ক স্থাপিত হয়েছিল।

 

 

 

 

 

সেমিনারে কাউন্টি শেরিফ অফিসের মুখপাত্র বব কিলিং বলেছেন, যে স্কুলে একজন ছাত্রী, একজন ছাত্র সবচেয়ে নিরাপদ থাকার কথা সেখানেই ঘটেছে এই ঘটনা। ভয়াবহভাবে মানবিকতা লঙ্ঘন করা হয়েছে। এটা অস্বাভাবিক এক ঘটনা। তাই আমরা বিশেষভাবে উদ্বিগ্ন। আমাদের উদ্বেগ এজন্য যে, এ ঘটনার শিকার অন্যরা হয়ে থাকতে পারে।

 

 

 

 

 

 

স্কুলে ভাষা বিষয়ক শিক্ষিকা ছিলেন জ্যাকলিন। তিনি ঘটনা প্রকাশ পাওয়ার পর ২৭শে সেপ্টেম্বর পদত্যাগ করেছেন। সেই পদত্যাগপত্র শনিবার থেকে কার্যকর হওয়ার কথা রয়েছে।

 

 

 

 

 

 

কিন্তু শনিবার নয়, বৃহস্পতিবার থেকে তার পদত্যাগপত্র কার্যকর হবে বলে জানানো হয়েছে। বালিকার বিরুদ্ধে চরম অনৈতিক আচরণের কারণে তাকে জন ই পোক কারেকশনাল ফ্যাসিলিটিতে পাঠানো হয়েছে।