প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     টিভি চ্যানেলে ছেঁড়া-ফাটা জিনস পরা মহিলাদের ধর্ষণ করার হুমকি দিয়েছেন এক আইনজীবী। এক টেলিভিশন শো-এ দেহ ব্যবসা রুখতে একটি নয়া আইন নিয়ে আলোচনার অংশ নিয়ে এ হুমকি দেন আল-ওহাস।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, যারা রাস্তায় নাভী-কোমর প্রদর্শন করে হাঁটে, তাদের ধর্ষণ করা কর্তব্য। এমন বিস্ফোরক উক্তি করে বিতর্ক উসকে দিলেন মিসরের সেই আইনজীবী। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন।

 

 

 

 

 

প্রভাবশালী নাবিহ আল-ওহাস নামের ওই আইনজীবীর অভিযোগ, মহিলাদের ‘উগ্র সাজ-পোশাকের’ জেরেই বৃদ্ধি পাচ্ছে ধর্ষণের মতো ঘটনা। তাই তাদের নৈতিকতার পাঠ শেখানো উচিত।

 

 

 

 

 

এক টেলিভিশন শো-এ দেহ ব্যবসা রুখতে একটি নয়া আইন নিয়ে আলোচনার অংশ নিয়েছিলেন আল-ওহাস। তার বক্তব্য, “নৈতিকতার সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে মহিলারা। ছেঁড়া জিনস পরে মহিলারা অঙ্গ প্রদর্শন করলে কী আপনারা খুশি হবেন? যে মহিলা এমন পোশাক পরবেন তাদের ধর্ষণ করা প্রত্যেক দেশবাসীর কর্তব্য।’

 

 

 

 

 

আদালতে আইনের লড়াই লড়লেও আদতে নিজেই আইনের তোয়াক্কা করেননি আইনজীবী আল-ওহাস। তার এহেন মন্তব্যে দেশজুড়ে তীব্র নিন্দার ঝড় বইছে। প্রতিবাদে মুখর হয়েছে মহিলাদের অধিকারের পক্ষে লড়াই করা বিভিন্ন সংগঠন।

 

 

 

এরই মধ্যে এ মন্তব্যের প্রতিবাদে আইনি লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে ‘দ্য ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর উইমেন’। মহিলাদের বিরুদ্ধে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে চ্যানেলটির বিরুদ্ধে মামলা করবে ওই সংগঠন।

 

 

 

 

 

মহিলাদের প্রতি মধ্যপ্রাচ্য এমনিতেই খানিকটা অসহিষ্ণু। বোরখার আড়ালে যে আদৌ একজন মানুষ রয়েছেন তা মানতে নারাজ বিভিন্ন দেশের পুরুষতান্ত্রিক সমাজ।