প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      প্রথমে নিজের ছেলে ও পরে নিজের মেয়েকে বিয়ে করলেন এক নারী। আজব এই ঘটনা ঘটেছে আমেরিকার ওকলাহোমা প্রদেশের ডানকানে। এদের তিনজনকেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। যদিও প্যাট্রিসিয়া স্পান নামে ওই নারীর দাবি যে এই বিয়ে আইনিভাবে বৈধ।

 

 

 

 

 

স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায় প্যাট্রিসিয়া। তার দুই ছেলে ও এক মেয়ে। যদিও আদালতের নির্দেশে এই তিন ভাই-বোন থাকত তাদের দাদির সঙ্গে। দাদি এই তিনজনকে নিজের সন্তান হিসেবে দত্তক নিয়েছিলেন।

 

 

 

 

 

বেশ কয়েক বছর ছেলেমেয়েদের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ ছিল না প্যাট্রিসিয়ার। দুই বছর আগে তার সঙ্গে ফের দেখা হয় মেয়ে মিস্টি স্পানের। তার তখন ২৬ বছর বয়স। নিজেদের মা-মেয়ের সম্পর্কের বিষয়ে সম্পূর্ণ ওয়াকিবহাল হয়েই তারা বিয়ে করে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

 

 

 

 

 

 

এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পরই প্যাট্রিসিয়া ও মিস্টিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারপরই তদন্তে নেমে জানতে পারে যে নিজের সন্তানকে বিয়ে এর আগেও করেছিল প্যাট্রিসিয়া।

 

 

 

 

 

 

 

২০০৮-এ নিজের এক ছেলেকেও বিয়ে করেছিল সে। সেই ছেলের তখন বয়স ছিল ১৮। এরপরই নাতি-নাতনিদের দত্তক নিয়ে নেন তাদের দাদি। এই অপরাধের জেরে ১০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে।