প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:        জাতির পিতার হত্যার সঙ্গে শুধু জিয়াউর রহমান নয় তার সঙ্গে খালেদা জিয়াও জড়িত। জাতির পিতার আত্মস্বীকৃত খুনিদের ভোট চুরি করে পার্লামেন্টে এনেছিল খালেদা জিয়া।

 

 

 

 

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ এ সভার আয়োজন করে।

 

 

 

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খুনিরা সব সময় খুনিই হয়। এরাই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়েছে। বার বার আমাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে। কাজেই এদের হাতে দেশের ক্ষমতা গেলে দেশের কি উন্নতি হবে, দেশের মানুষ কি ন্যায় বিচার পাবে?

 

 

 

 

জিয়াউর রহমানের রাষ্ট্রক্ষমতায় আসা এবং বিএনপির প্রতিষ্ঠার কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি অন্যায়ের মধ্যে দিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিল। তাই তারা কখনও ন্যায় বিচার করতে পারবে না।

 

 

 

 

 

ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি এবং জিয়াউর রহমান তাদের দূতাবাসে চাকরিসহ বিভিন্নভাবে পুরস্কৃত করেছিল এমন ঘটনার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, জিয়া যাদের বাঁচাতে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করেছিল তাদেরকেই খালেদা জিয়া ভোট চুরি করে সংসদে নিয়েছিল।

 

 

 

 

 

তার অর্থ দাঁড়াচ্ছে জিয়াউর রহমান একাই নয়, তার স্ত্রীও ১৫ আগস্টের হত্যার ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

 

 

 

 

 

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৫ আগস্ট বাঙালি জাতির জন্য সবচেয়ে কলঙ্কজনক দিন।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, জাতির পিতা বেঁচে থাকলে স্বাধীনতার ১০ বছরের মধ্যে বাঙালি জাতি ক্ষুধা দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত জাতি হিসেবে গড়ে উঠতো, উন্নত জাতি হিসেবে বিশ্বে মর্যাদা পেতো।