প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     বিএনপির ছিন্নভিন্ন অবস্থা। তারা নির্বাচনে আসবে কিনা সেটা বলতে পারবো না। তবে আমরা নির্বাচন করবো। যদি বিএনপি নির্বাচনে আসে আমরা জোটবদ্ধভাবে করবো। আর বিএনপি না আসলে ৩০০ আসনে এককভাবে করবো। শনিবার দুপুরে রংপুর সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি একথা বলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

 

 

 

 

 

এরশাদ বলেন, বৃহত্তর রংপুরের ২২টি আসনের মধ্যে শুধু পীরগঞ্জ ছেড়ে দিয়েছিলাম। এবারও আশা করি এই ২১টি আসনে আমরা জয়ী হব। আমরা রংপুরের সব কটি আসন এবার চাই।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, বাংলাদেশ শক্তিশালী রাজনৈতিক প্লাটফর্ম ছিল ৩টি। আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি এবং বিএনপি। কিন্তু বিএনপির অবস্থা এখন খুব ভালো নেই। সেহেতু এখন দুটি প্লাটফর্ম আছে। একটা হলো আওয়ামী লীগ। দ্বিতীয়টা হলো জাতীয় পার্টি।

 

 

 

 

 

 

এরশাদ বলেন, তাই বিএনপি নির্বাচনে আসলে জোটবদ্ধ নির্বাচন করবো। আর বিএনপি না আসলে এককভাবে আমরা ৩০০ আসনে নির্বাচন করবো।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, রংপুর-৩ আসনে আমি নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করলাম। এই আসন থেকে আমি বরাবরই নির্বাচিত হয়ে এসেছি। এবারও আমি এই আসন থেকে নির্বাচন করবো। আমি যেন মরার সময় গর্ব করে বলতে পারি। রংপুরের মানুষ আমাকে ভোট দিয়েছে। তাদের ভালোবাসা নিয়ে আমি কবরে যেতে চাই।

 

 

 

 

 

এরশাদ বলেন, তোমরা সবাই জানো আমি কোরবানির ঈদ এখানে করি। এবার আর একটা নতুন এডিশন। সেটা হলো আজ থেকে আমার নির্বাচনী প্রচারণা শুরু হলো রংপুর থেকে। আমার জন্মভূমি থেকে।

 

 

 

 

 

 

এ সময় জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, ভাইস চেয়ারম্যান ও রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, মহাসচিব এবিএম রুহুম আমীন হওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়া উদ্দিন বাবলু, মেজর (অব) খালেদ আখতার, রংপুর মহানগর সেক্রেটারি এসএম ইয়াসির, জেলা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, শাফিউল ইসলাম শাফী, সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আব্দুল বারী, জেলা যুব সংহতির সেক্রেটারি হাসানুজ্জামান নাজিম, মহানগর ছাত্রসমাজ সভাপতি ইয়াসির আরাফাত ও সেক্রেটারি আমিনুল ইসলাম ছোট প্রমুখ।