প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      ঢাকায় বাসের চাপায় সহপাঠীর নিহতের ঘটনায় বিচার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে স্কুল-কলেজের সাধালণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে পুলিশের ওপর হামলা ও ভাঙচুরের পৃথক মামলায় গ্রেফতার ৩৮ শিক্ষার্থী জামিন পেয়েছেন।

 

 

 

 

 

রোববার দুপুরে ঢাকা মহানগর মুখ্য হাকিম সাইফুজ্জামান হিরো এবং ঢাকা মহানগর হাকিম একেএম মঈনুদ্দিন সিদ্দিকী শিক্ষার্থীদের জামিন মঞ্জুর করেন।

 

 

 

 

আসামি পক্ষের আইনজীবীদের মধ্যে কবীর হোসেন, ব্যারিস্টার জ্যাতির্ময় বড়ুয়া, আক্তার হোসেন জুয়েলসহ আরো অনেকে জামিন চেয়ে শুনানি করেন।

 

 

 

 

ঢাকার থানা ও আদালত সূত্র জানায়, আন্দোলনের সময় সংঘাত, ভাঙচুর, উসকানি ও পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ এ পর্যন্ত ৫১টি মামলায় ৯৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

 

 

 

 

এদের মধ্যে ৫২ জন শিক্ষার্থী। আজ ঢাকার আদালতে জামিন চেয়ে ৩৮ শিক্ষার্থীর পক্ষে জামিন আবেদন করা হয়। সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের আইনজীবীরা জামিনের পক্ষে শুনানি করেন।

 

 

 

 

 

 

শুনানিতে ছাত্রদের আইনজীবীরা আদালতের কাছে যুক্তি তুলে ধরে বলেন, এসব ছাত্রের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ নেই। মামলার এজাহারেও তাঁদের নাম নেই। সন্দেহজনকভাবে তাঁদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার সবাই ছাত্র। আদালত শুনানি নিয়ে ৩৮ শিক্ষার্থীর জামিন মঞ্জুর করেন।

 

 

 

 

 

এর আগে, হামলা ও ভাচুরের অভিযোগে আটক ছাত্রদের দুই দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করা হয়। আদালতের কাছে ছাত্রপক্ষের আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করেন।

 

 

 

 

 

 

 

শুনানি শেষে আদালত তা নাকচ করে ছাত্রদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এ সময়ে আদালতের এজলাসে ছাত্রদের অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।