প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি। যত বাধা তৈরি করা হোক না কেন, খালেদা জিয়াকে নিয়েই নির্বাচনে যাওয়ার শপথ নিয়েছে দলের প্রতিটি নেতা-কর্মী বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার দুপুরে ঢাকার শেরেবাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

 

 

 

 

 

 

 

বিএনপির অঙ্গ-সংগঠন জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা জানানো শেষে সাংবাদিকদের কাছে এ মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

 

 

 

 

 

 

মির্জা ফখরুল বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ চায় না বিএনপি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। সে জন্য আওয়ামী লীগ বিভিন্ন অজুহাতে বাধা সৃষ্টি করছে। বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে সরকার বিভিন্ন কৌশল করছে। আর সে জন্য একেক সময় একেক ধরনের কথা বলা হচ্ছে।

 

 

 

 

 

 

সংলাপের কোনো পথ দেখছেন কি না, সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে ফখরুল ইসলাম বলেন, বিএনপি বারবার সংলাপ চেয়েছে। সংলাপ ছাড়া কোনো সমস্যার সমাধান হয় না।

 

 

 

 

আওয়ামী লীগ দু-একটি কথা বলে, কিন্তু কিছু করে না। বিএনপির ১/১১ করার প্রয়োজন কী? ১/১১-এর সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক নেই। বিএনপি এখন ড্রাইভিং সিটে (চালকের আসনে) নেই। স্টিয়ারিং বর্তমান সরকারের হাতে। ১/১১ সরকার আওয়ামী লীগই এনেছিল।

 

 

 

 

 

 

ফখরুল ইসলাম আরও বলেন, অবৈধ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে ১/১১ সরকারকে বৈধতা দিয়েছিল। সুতরাং সেই অভিজ্ঞতা আওয়ামী লীগেরই আছে।

 

 

 

 

 

১/১১-এর ষড়যন্ত্র আওয়ামী লীগই করছে। অযথা বিএনপিকে এর মধ্যে টেনে নিয়ে আসা আওয়ামী লীগের ‘কুমতলব’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

 

 

 

 

 

এসময় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, শামসুজ্জামান দুদু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়াসহ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।