প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, জাতীয় ঈদগাহসহ প্রতিটি ঈদের জামাত ঘিরে রাজধানীতে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে।

 

 

 

 

তিনি আজ সোমবার জাতীয় ঈদগাহ প্রাঙ্গণে ঈদের জামাতের নিরাপত্তাব্যবস্থা পরিদর্শন শেষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন।

 

 

 

 

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ঈদের সময় রাজধানীতে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা থাকবে। এ সময় ১৪ হাজার পুলিশ সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন।

 

 

 

 

তিনি বলেন, ঈদগাহ ময়দানে আসার সময় বাইরের গেটে, প্রধান গেটে ও ভেতরে চেকপোস্ট থাকবে। নিরাপত্তার স্বার্থে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদের সহযোগিতার জন্য মুসল্লিদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

 

 

 

 

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঈদগাহ ময়দানে ব্যাগ, ধারালো অস্ত্র, লাঠিসোঁটা আনা যাবে না। মুসল্লিরা জায়নামাজ আর বৃষ্টি হলে ছাতা সঙ্গে আনতে পারবেন। তবে প্রয়োজনে জায়নামাজ ও ছাতাও তল্লাশি করা হতে পারে।

 

 

 

 

 

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ঈদ উপলক্ষে রাজধানী ঢাকা অনেকটাই ফাঁকা হয়ে যাবে। বাসাবাড়ি, অফিস, বিপণিবিতানগুলোও ফাঁকা থাকবে। এ সময় মহানগরের নিরাপত্তায় পুলিশি টহল বাড়ানো হবে।

 

 

 

 

 

কমিশনার বলেন, পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম বিভাগের ডগ স্কোয়াড ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট দিয়ে ঈদগাহ ময়দান সুইপিং করা হবে। কাউন্টার টেরোরিজমের ও সোয়াট টিমের সদস্য স্ট্যান্ডবাই থাকবে । অন্যান্য সংস্থার সাথে সমন্বয় করে ডিএমপি’র পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি ।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, ঈদগাহের চতুর্থদিকে ও ভেতরে সর্তক অবস্থায় থাকবে ইউনিফর্মে ও সাদা পোষাকে পুলিশ। জাতীয় ঈদগাহে ও তার আশপাশের নিরাপত্তায় বসানো হয়েছে বিপুল পরিমান সিসি ক্যামেরা। পুলিশ কন্ট্রোল রুম থেকে সার্বক্ষণিক সিসি ক্যামেরা দিয়ে জাতীয় ঈদগাহ ও তার চারপাশে মনিটরিং করা হবে।

 

 

 

 

 

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন- প্রত্যেক মুসল্লিকে শারীরিক তল্লাশি, মেটাল ডিটেক্টর ও আর্চওয়ে দিয়ে ঈদগাহে প্রবেশ করতে হবে। যেকোন প্রয়োজনে পুলিশ কন্ট্রোল রুমে যোগাযোগ করতে নগরবাসীকে অনুরোধ জানান ডিএমপি কমিশনার।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, সম্মানিত নারী মুসল্লিদের জন্যও থাকবে বিশেষ ব্যবস্থা। তাদেরকেও নারী পুলিশ সদস্য দ্বারা তল্লাশি করে ঈদগাহে প্রবেশ করানো হবে।

 

 

 

 

 

 

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঢাকা মহানগরীর ট্রাফিক ব্যবস্থায় ইতিমধ্যে ইতিবাচক পরিবর্তন এসেছে । আশা করছি, ঈদের পর এই পরিবর্তন আরও দৃশ্যমান হবে।