প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, আমরা মনে করি না, কোনো থ্রেট (হুমকি) আছে, আমরা প্রত্যেকটি হুমকি মাথায় রেখে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি এবং সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়েছি।

 

 

 

 

তিনি বলেন, আমরা কনফিডেন্ট যে, নিরাপত্তা আমরা সবাইকে দিতে পারব।

 

 

 

 

মঙ্গলবার বিকালে গাজীপুর চৌরাস্তায় সড়ক-মহাসড়কের পরিস্থিতি দেখতে এসে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

 

 

 

 

 

সারা দেশে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাসহ সব অনুষ্ঠান শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে বলে স্বস্তি প্রকাশ করেন পুলিশপ্রধান। আগামী দিনগুলোতেও পুলিশ বিভাগ একইভাবে দায়িত্ব পালন করবে বলে জানান তিনি।

 

 

 

 

 

জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ‘ঈদুল আজহার সময়ে দুটি চ্যালেঞ্জ থাকে। এ সময়ে জনগণ গ্রামে যায় এবং পশুবাহী গাড়ি শহরমুখী হয়। এ দুটি চ্যালেঞ্জকেই আমরা মোকাবেলা করতে পেরেছি। এখন পর্যন্ত ঈদের মার্কেটের পাশাপাশি পশুর মার্কেটে নিরাপত্তা আমরা দিয়েছি। কোথাও পশুর ঘাটতি নেই। যানবাহনে কোনো প্রতিবন্ধকতা দেখা যায়নি।’

 

 

 

 

 

সড়ক-মহাসড়কে কোনো যানজট নেই, তবে অনেক গাড়ির চাপে গতি কিছুটা শ্লথ বলে মন্তব্য করেন আইজিপি।

 

 

 

 

তিনি বলেন, ‘যখন লাখ লাখ মানুষ বাড়ি যেতে চাইবে, অনেকগুলো গাড়ি রাস্তায় আসবে, স্বাভাবিকভাবেই গতি কিছুটা শ্লথ হবেই। আমরা তো এটা আশা করতে পারি না, যখন রাস্তায় গাড়ি কম থাকবে সেই সময়ের গতি আর বেশি গাড়ি থাকা অবস্থায় রাস্তার পরিস্থিতি একই রকম হবে। এ কারণে গতি হয়তো কিছুটা কম হতে পারে, কিন্তু কোথাও কোনো প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয়নি।’

 

 

 

 

 

তবে নদীর স্রোত বেশি থাকায় দৌলতদিয়া ঘাটে গাড়ি পারাপারে সময় কিছুটা বেশি লাগছে উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, ‘প্রকৃতির ওপর কারো হাত নেই, সেখানে আমরা অসহায়। এ কারণে ঘাটে গাড়ির কিছুটা জট হয়েছে।’

 

 

 

 

 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আইজিপির ঢাকা রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) আব্দুল্লাহ আল মামুন, হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি মো. আতিকুল ইসলামসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা।