প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     কেরালাকে নতুন করে গঠন করার কাজে বিদেশি সাহায্য নেওয়ার ব্যাপারে আলোচনা শুরু করেছে ভারত সরকার। বিভিন্ন সূত্র থেকে বুধবার রাতে এই খবর দিয়েছে এনডিটিভি। যদিও আবর আমিরাতসহ বেশ কয়েকটি দেশ সাহায্যের হাত বাড়াতে চাইলেও ফিরিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার।

 

 

 

 

বন্যায় পুরোপুরি বিপর্যস্ত হয়ে পড়া কেরালাকে নতুন করে তৈরি করতে প্রয়োজন প্রচুর পরিমাণ টাকা। একটা সময় বিভিন্ন সূত্র থেকে বলা হচ্ছিল, ভারত বিদেশ থেকে আসা সাহায্য নেবে না। কিন্তু সেই অবস্থান থেকে দিল্লি কিছুটা হলেও সরতে শুরু করেছে বলে শোনা যাচ্ছে।

 

 

 

 

 

রাতের দিকে এমন খবর পাওয়া গেলেও দিনের শুরুটা হয়েছিল অন্যভাবে। থাইল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত টুইট করে জানিয়ে দেন, ভারত স্পষ্ট করে দিয়েছে যে তারা আর্থিক সাহায্য নেবে না।

 

 

 

 

 

 

একই ভাবে জানা যায় আরবের প্রস্তাবিত ৭০০ কোটি টাকাও গ্রহণ না করার কথাই ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার। আরবের উন্নতিতে কেরালার মানুষদের অবদানের কথা মনে রেখে সাহায্য করার কথা বলেছে আরব।

 

 

 

 

 

 

প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ক্ষেত্রে বিদেশ থেকে আসা সাহায্য নেওয়া হবে কিনা তা নিয়ে আলোচনা চলছে দীর্ঘদিন ধরে। কংগ্রেস পরিচালিত ইউপিএ সরকার সিদ্ধান্ত নেয় কোনও রকম সাহায্য নেওয়া হবে না।

 

 

 

 

 

উল্টে কোনও দেশ সমস্যায় পড়লে ভারত পাশে দাঁড়াবে। এভাবেই গোটা দুনিয়াকে আর্থিক প্রগতির বার্তা দেওয়ার পথ বেছে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখন ভাবনায় কিছুটা বদল এসেছে।

 

 

 

 

 

কেরালায় চাইছে কেন্দ্র সবুজ সংকেত দিয়ে দিক। সে রাজ্যের অর্থমন্ত্রী টমাস আইজ্যাক জানিয়েছেন কেন্দ্র নিজে সবটা করতে পারছে না। আমরা যে পরিমাণ টাকা চেয়েছিলাম তার থেকে অনেক কম টাকা দেওয়ার ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। এমতাবস্থায় কেউ সাহায্য করতে চাইলে তাকে বাধা দেওয়া অনুচিত।

 

 

 

 

 

এদিকে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে বিদেশে থাকা ভারতীয়রা কেরালার মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে টাকা পাঠাতে পারবেন। তার জন্য কোনও কর দিতে হবে না।