প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:       পবিত্র ঈদুল আজহায় মুসলমানরা যাতে গরু কোরবানি দিতে না পারে এজন্য ব্যাপক নাশকতার পরিকল্পনা করেন ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যের ক্ষমতাসীন দলের বিধায়ক রাজা সিং। তাই রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে গোশামহল থেকে নির্বাচিত ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) ওই বিধায়ককে মঙ্গলবার সকাল থেকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়।

 

 

 

 

 

নিরপরাধ দুই মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যার দায়ে আটক কথিত গরু রক্ষকদের মুক্তির দাবিতে ওই দিন হায়দরাবাদ পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের সামনে দলবল নিয়ে অবস্থান ধর্মঘট এবং পবিত্র ঈদুল আজহার দিনে যাতে মুসলিমরা পশু কোরবানি দিতে না পারে এজন্য সরকারি নিষেধাজ্ঞার দাবিতে সহিংস আন্দোলনের পরিকল্পনা ছিল রাজা সিংয়ের।

 

 

 

 

 

কথিত গরু রক্ষা আন্দোলন আরও জোরদার করার দাবিতে গত সপ্তাহে বিজেপি থেকে পদত্যাগের চিঠি দিয়ে সাড়া ফেলেছিলেন আটক হওয়া ওই এমপি। যদিও বিজেপির রাজ্য সভাপতি কে. লক্ষণের কাছে জমা দেওয়া ওই পদত্যাগপত্র এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করা হয়নি।

 

 

 

 

 

গত ২০ আগস্ট সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা ভিডিওতে রাজা সিং বলেছেন, গ্রেফতার করা হলে আমি জেলের মধ্যেও আমরণ অনশন চালিয়ে যাবো।

 

 

 

 

মঙ্গলঘাট ও আফজালগঞ্জে দুই মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যার মামলায় গ্রেফতার কথিত গোরক্ষকদের বেকসুর খালাস এবং মামলা দুটি খারিজের জন্য ব্যাপক আন্দোলনের পরিকল্পনাও করেন উগ্রপন্থী ও ধর্মান্ধ এ জনপ্রতিনিধি।

 

 

 

 

 

২০১৪ সালে বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার ভারতের ক্ষমতায় আসার পর বেশ কয়েকটি রাজ্যে গরু জবাই (গোহত্যা) ও গরুর মাংস খাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। গরু রক্ষার নামে উগ্রবাদী ধর্মীয় গোষ্ঠীর সহিংসতায় প্রাণ হারিয়েছে অনেক মুসলমান।