প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:       ছাত্রীকে ‘ধর্ষণের’ অভিযোগে এক শিক্ষককে মারধরের পর নগ্ন করে রাস্তায় হাঁটিয়েছে ওই ছাত্রীর পরিবার ও এলাকাবাসী। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের পশ্চিম গোদাবরী জেলার এলুরু শহরে এই ঘটনা ঘটে।

 

 

 

 

 

অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নাম রামবাবু। এলুরুর একটি স্কুলের ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষক তিনি।

 

 

 

 

 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের খবরে জানানো হয়েছে, গত দু্ই বছরে ধরে এক ছাত্রীকে কয়েকবার ধর্ষণ করেছেন রামবাবু। সম্প্রতি ওই ছাত্রী গর্ভবতী হয়ে পড়লে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে তাকে গর্ভপাতের ওষুধ খাওয়ান ওই শিক্ষক।

 

 

 

 

 

ওই ছাত্রীর পরিবারের দাবি, গর্ভধারণের বিষয়টি প্রথমে অস্বীকার করে ওই ছাত্রী। কিন্তু তার শারীরিক লক্ষণ দেখে পরিবারের সদস্যদের সন্দেহ হয়। পরে পরিবারের লোকজন এ বিষয়ে চাপ দিলে আসল ঘটনা বেরিয়ে আসে।

 

 

 

 

 

ঘটনা জানার পর ওই ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা লোকজন নিয়ে রামবাবুর বাড়িতে হামলা চালায়। তাকে বাড়ি থেকে টেনে বের করে প্রথমে বেধড়ক মারধর করা হয়।এরপর ওই শিক্ষককে নগ্ন করে শহরের রাস্তায় হাঁটিয়ে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় ঘটনার ছবি ও ভিডিও ধারণ করেন অনেকেই।

 

 

 

 

 

 

পুলিশ জানিয়েছে, ওই ছাত্রীর পরিবার রামবাবুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছে। এরপর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।