প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      আওয়ামী লীগ নির্বাচনী ও রাজনৈতিক সঙ্কট তৈরি করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপির মহাসচিব বৃহস্পতিবার দুপুরে ঠাকুরগাঁওয়ের তাঁতিপাড়ার নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করার সময় এ মন্তব্য করেন তিনি।

 

 

 

 

 

এ সময় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘সামনে নির্বাচন, গায়ের জোরে বললে হবে না, যে সঙ্কট নেই। আলোচনার মাধ্যমে সংকট দূর করতে হবে। সংলাপের বসতে হবে।’

 

 

 

 

 

 

এখন পর্যন্ত নির্বাচনকালীন সরকার গঠন না করায় উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি আরও বলেছেন, ‘খালেদা জিয়াকে মুক্ত করেই বিএনপি আগামী সংসদ নির্বাচনে যাবে। সরকারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বিএনপির সঙ্গে কোনো আলোচনা নয় অথচ যে কোনও বিরোধ নিরসনে আলোচনা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত পন্থা।’

 

 

 

 

 

 

এ ছাড়া ২১ আগস্টের রায়ে সরকার প্রভাব ফেলতে পারে এমন আশঙ্কা করে ফখরুল বলেন, ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানকে জড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া বক্তব্য এই মামলার রায়ে প্রভাব ফেলবে। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য মূলত মামলার রায়কে প্রভাবিত করারই শামিল।’

 

 

 

 

 

নির্বাচনের আগে আন্দোলন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিএনপি মাঠে নেই এটা একটা মিথ্যা কল্পিত কথা। আমরা মাঠে আছি কিন্তু আমাদেরকে কোনো রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড সভাসমাবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। এ সরকার এতোটাই স্বৈরাচারী হয়ে উঠেছে যে, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক এবং একটা ন্যায্য আন্দোলনকেও নিষ্ঠুর পন্থায় দমন করেছে।’

 

 

 

 

 

 

এছাড়া কারাগারে ঈদের দিন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দলীয় নেতাকর্মীদের দেখা করতে না দেওয়াকে মির্জা ফখরুল সরকারের স্বৈরাচারী মনোভাব বলে মন্তব্য করে বলেন, বিরোধী দলকে রাস্তায় নামনে দেয়না, সভা সমাবেশের অনুমতি দেয় না। এর পরেও শান্তিপূর্নভাবে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিবাদ করে যাচ্ছে বিএনপি।

 

 

 

 

 

এসময় জেলা, সদর উপজেলা, পৌর বিএনপি ও যুবদল-ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।