প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     v ২০২০ সালের নির্বাচনে হেরে যাবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমন তথ্য উঠে এসেছে মার্কিন পত্রিকা ‘পলিটিকো’ এবং মিডিয়া কোম্পানি ‘মর্নিং কনসাল্ট’-এর যৌথ জনমত জরিপে। এদিকে ফক্স নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেছেন-‘আমাকে অভিশংসন করা হলে বাজার ধসে পড়বে এবং সবাই খুব গরিব হয়ে যাবে।’

 

 

 

 

 

ওই জনমত জরিপের ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, আগামী নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক পার্টি যদি ট্রাম্পের মোকাবেলায় জো বাইডেনকে প্রার্থী করে তাহলে ট্রাম্পের জয়ের সম্ভাবনা কমে যাবে। সে ক্ষেত্রে বাইডেনই হবেন পরবর্তী প্রেসিডেন্ট।

 

 

 

 

 

জনমত জরিপের ফলাফলে আরও জানা যায়, ট্রাম্প ও বাইডেনের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হলে ট্রাম্পের জয়ের সম্ভাবনা থাকবে ৩১ শতাংশ। আর বাইডেনের সম্ভাবনা ৪৩ শতাংশ।

 

 

 

 

 

একইভাবে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও বারনি সেন্ডার্সের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হলে ট্রাম্পের প্রতিপক্ষের সম্ভাবনা আরও বেড়ে যাবে। সেন্ডার্সের প্রেসিডেন্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে ৪৪ শতাংশ।

 

 

 

 

 

 

জো বাইডেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া বারনি সেন্ডার্স হচ্ছেন দেশটির স্বতন্ত্র সিনেটর। তিনি বহু বছর ধরে সিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

 

 

 

 

 

ট্রাম্পের সাবেক ব্যক্তিগত আইনজীবী মাইকেল কোহেনের নানা অপরাধ বিষয়ক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির আগে গত ১৬ থেকে ১৮ আগস্ট এই জনমত জরিপ চালানো হয়েছে। অনেকেই মনে করছেন, কোহেন অপরাধ স্বীকার করার পর ট্রাম্পের জয়ের সম্ভাবনা আরও কমে গেছে। আগামী ২০২০ সালের ৩ নভেম্বর আমেরিকার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

 

 

 

 

এদিকে সাম্প্রতিক বিতর্কের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অভিশংসনের দাবি উঠেছে। এরপর পাল্টা জবাবে ট্রাম্প বলেছেন, তাকে অভিশংসন করা হলে অর্থনীতি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

 

 

 

 

 

এর আগে, নির্বাচনী আইন ভঙ্গ করে ট্রাম্পের সাবেক প্রেমিকাদের মুখ বন্ধ করতে টাকা দেয়াসহ বিভিন্ন অপরাধ স্বীকার করেন তার সাবেক আইনজীবী মাইকেল কোহেন। ট্রাম্পের নির্দেশেই তিনি ওই অপরাধ করেছেন বলেও নিশ্চিত করেন কোহেন।

 

 

 

 

 

 

ফক্স অ্যান্ড ফ্রেন্ডসকে ট্রাম্প বলেন, অসাধারণ কাজ করেছে এমন একজন মানুষকে আপনারা কিভাবে অভিশংসন করবেন আমি জানি না।যুক্তরাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে কোনও ধরনের অর্থ ব্যয়ের ঘটনা জানলে কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা উচিত।

 

 

 

 

 

 

উল্লেখ্য, এর আগে চলতি বছরের শুরুতে সিবিএস নিউজের নতুন জরিপে উঠে এসেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিয়ে দেশটির ভোটারদের অনুভূতি। ওই জরিপে ৪৪ভাগ আমেরিকান ট্রাম্পকে নিয়ে এমব্রেসড।

 

 

 

 

 

 

অন্যদিকে ৩৫ ভাগ উত্তরদাতা রাগান্বিত শব্দটি ব্যবহার করেছে। বিপরীতে ১৮ ভাগ মানুষ গর্বিত শব্দটি ব্যবহার করেছে। আশাবাদী শব্দটি ব্যবহার করেছে ৩২ শতাংশ মানুষ আর খুশি শব্দটি ব্যবহার করেছেন ১৬ শতাংশ মানুষ।

 

 

 

 

 

 

এবার সবশেষ জনমত জরিপে উঠে এসেছে ২০২০ সালের নির্বাচনে হেরে যাবেন ট্রাম্প আর অন্যদিকে অভিশংসনের দাবি।