প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     পাকিস্তানের নয়া প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের মন্ত্রিসভা প্রেসিডেন্ট, প্রধান বিচারপতি, সিনেট চেয়ারম্যান ও স্পিকারের প্রথম শ্রেণির বিমান ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

 

 

 

 

 

ডনের খবরে বলা হয়েছে, শুক্রবার সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মঘণ্টা পরিবর্তন, প্রধানমন্ত্রীসহ অন্যান্য মন্ত্রী ও জাতীয় সংসদের সদস্যদের সরকারি তহবিল রহিতকরণের ঘোষণা দেওয়া হয়।

 

 

 

 

 

প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে মন্ত্রিসভার দ্বিতীয় বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো।
মন্ত্রিসভা অবশ্য এক দিনের সাপ্তাহিক ছুটির দিনের প্রস্তাব নাকচ করে। ওই প্রস্তাবে শনিবারকে ছুটির দিনের তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার কথা ছিল।

 

 

 

 

 

 

দিনের মোট কর্মঘণ্টা বরাবরের মতো আট ঘণ্টাই থাকছে। তবে আগে যেখানে অফিস হতো সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত, এখন সেখানে নতুন অফিস সময় হবে সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা।

 

 

 

 

বৈঠকে বিগত সরকারের আমলে পাঞ্জাব ও খাইবার পাখতুনখাওয়া এলাকায় পরিচালিত বৃহৎ পরিবহন প্রকল্পগুলো অডিট করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

 

 

 

 

সভায় আরও বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শুধু দেশের ভেতরে যাতায়াতের জন্য তাঁর অফিশিয়াল বিমানটি ব্যবহার করবেন, দেশের বাইরে সফরের জন্য নয়।

 

 

 

 

 

মন্ত্রিসভার বৈঠকে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তা হলো, দেশজুড়ে বস্তি উন্নয়নের জন্য টাস্কফোর্স গঠন করা হবে এবং প্রধান শহরগুলোতে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে।

 

 

 

 

 

ক্যাপিটাল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিভিশন মন্ত্রণালয়টি বিলোপেরও ঘোষণা দেওয়া হয় সভায়। বলা হয়, এ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন বিভাগকে অন্যান্য মন্ত্রণালয়ে আত্তীকরণ করা হবে।

 

 

 

 

 

 

ডনের খবরে বলা হয়, সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এক বছরে সরকারি তহবিলের ৫১ বিলিয়ন পাকিস্তানি রুপি খরচ করেন।