প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    সিভি বা বায়োডেটা বা রেজিউমি, অনেকে অনেক কিছুই বলে থাকেন৷ কথাগুলোর মধ্যে পার্থক্য থাকলেও কমবেশি অনেকেই যে সেখানে মিথ্যা লেখেন তা বলাই যায়৷ নিজের সম্পর্কে ভালো লিখে ইন্টারভিউয়ে ইমপ্রেস করতে কেউই ত্রুটি রাখে না৷

 

 

 

 

 

সেই মিথ্যা কে কিভাবে উপস্থাপন করতে পারে তাও কিন্তু ভাববার বিষয়৷ তবে এর উল্টোটাও যে হতে পারে তা কি জানেন? এমনটাই হয়েছে৷ মেয়ের প্রথম সিভি লিখতে গিয়ে এক ব্রিটিশ বাবা একেবারে হাঁটলেন বিপরীত পথে।

 

 

 

 

 

 

ব্রিটিশ তরুণী লরেন তার বাবাকে সিভি লিখে দিতে বললে, তিনি তা যথেষ্ট আগ্রহ নিয়েই করতে বসেন৷ যেভাবে সিভি লিখতে হয় ঠিক সেইভাবেই শুরুটা হয়েছিল, কিন্তু ভিতরে মেয়ের গুণাগুন লিখতে গিয়ে এতটাই সততা দেখালেন তিনি যে, তা সোশ্যাল মিডিয়ায় লরেন শেয়ার করার পর চাকরি না হোক ভিউয়ার্স বাড়তে এবং ভাইরাল হতে যে সময় নেয়নি তা বলার অপেক্ষা রাখে না৷

 

 

 

 

 

 

ট্যুইটারে নিমেষে ছড়িয়ে পড়ে তার সেই সিভি। লরেনের বাবা লেখেন, তার মেয়ে ২ বিষয়ে ফেল করেছে৷ আরও তিনি লিখে দেন যে, তার মেয়ে শুধু ফেসবুক ব্যবহার করে, কারও কথা শোনে না৷

 

 

 

 

 

 

অলস, বদমেজাজি। লোরেন তার এই সিভি ট্যুইটারে শেয়ার করেন৷ আর তা দেখে অনেকেই লেখেন, লোরেন’র বাবা ‘ফাদার অব দ্য ইয়ার’৷