প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    মায়ের সঙ্গে গ্রিসে বেড়াতে গিয়েছিলেন ১৪ বছর বয়েসী ব্রিটিশ শিশু মেগান স্টিফেনস (ছদ্মনাম)। পাহাড়, প্রকৃতি, জাদুঘর আর গ্রিসের মানুষের আতিথেয়তা- দারুণ কেটেছিল সফরের প্রথম দুটো দিন।

 

 

 

 

এরপরই তাঁর জীবনে নেমে আসে অন্ধকার। এক মেলায় ভিড়ের ভেতর দিয়ে যাওয়ার সময় মায়ের হাত ছুটে যায়। এরপর কয়েকজন পুরুষ তাকে তুলে নিয়ে বিক্রি করে দেয় যৌনপল্লীতে। সেখানে এক বছর কাটানোর পর মালিক তাকে বিক্রি করে দেয় অন্য এক জায়গায়।

 

 

 

 

 

এভাবেই জীবনের পরের ছয়টি বছর প্রতিনিয়ত হাতবদল হতে হয়েছিল তাঁকে। বর্তমানে ২৫ বছর বয়স্ক মেগান চলতি বছরের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে নারী ডেইলি মেইলকে জানান, তাঁকে প্রতিদিনই গড়ে ৫০ জনের সাথে যৌনক্রিয়া করতে হতো।

 

 

 

 

 

 

একবার অবস্থা এমন হয়েছিল যে, ২২ ঘণ্টার মধ্যে তাকে ১১০ জন পুরুষ ধর্ষণ করে। একসময় তিনি আত্মহত্যা করার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু ভাগ্যের জোরে প্রাণ বেঁচে যায়। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর তিনি নতুন জীবন পান। তাঁর জীবনে প্রেম আসে। বদলে যায় জীবন।

 

 

 

 

 

 

 

সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মেগান জানিয়েছেন তিনি এখন সন্তানসম্ভবা। তবুও ছয় বছরের দুঃস্বপ্ন যে তাড়া করে ফেরে তাঁকে। এখনো নিজের পরিবারের সন্ধান জানেন না মেগান। তবে তিনি আশা করেন একদিন তিনি তাঁর মায়ের কাছে ফিরতে পারবেন।