প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:       ভালাবাসার টানে বাসা থেকে প্রেমিকা স্পর্শিয়া ভেগে আসে প্রেমিক সুমিতের সঙ্গে। নতুন করে ঘর বাঁধার স্বপ্ন জাল বুনে দুই ভালাবাসার কপোত-কপোতি।

 

 

 

 

ভালাবাসার বন্ধনকে দৃঢ় করতে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। শুরু হয় দুজনার তুমুল রোমান্স। চলতে থাকে নতুন কাপলের ভালোবাসার নানান খুঁনসুটি। রাত-দুপুরে চায়ের কাপে চলে তুমুল বৃষ্টি।

 

 

 

 

রোমান্স, খুনসুটি চুমুতে চুমুতে চলতে থাকে ভালোবাসার বসবাস। এভাবেই এক মধুময় জীবনের গল্প এগিয়ে চলে। এই গল্প দেখা গেল গত শুক্রবার প্রকাশিত এক মিউজিক ভিডিওতে। ‘চায়ের কাপে তুমুল বৃষ্টি’ শিরোনামে গানটির ভিডিওতে মডেল হয়েছেন সুমিত ও স্পর্শিয়া।

 

 

 

 

 

ভিডিওটিতে দেখা গেছে ১৪টি চুমু দিয়েছেন সুমিত-স্পর্শিয়া। ইউটিউবে ভিডিওটির নিচে দর্শকদের কটু মন্তব্যের ঢল দেখা গেলেও গানটি যে বেশ আলোচনায় এসেছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

 

 

 

 

 

কিছুদিন আগে ভিজুয়ালাইজার টিম সংগীতশিল্পী পিয়াল হাসান গান ‘চায়ের কাপে তুমুল বৃষ্টি’ এর এই ভিডিওটি নির্মাণ করে। যেখানে সম্পূর্ণ ভিন্ন আবহে খুঁজে পাওয়া গেল স্পর্শিয়া ও সুমিত সেনগুপ্তকে।

 

 

 

 

গানটি লিখেছেন জামাল রেজা। গানটির সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন শিশির। সৈকত নাসিরের নির্মাণে কোরিওগ্রাফিতে ছিলেন নিডো খান। ভিজুয়্যালাইজার টিমের এই ভিডিও নিমার্ণে ডিওপি হিসেবে ছিলেন ফরহাদ হোসেন।

 

 

 

 

গানটি নিয়ে সংগীতশিল্পী পিয়াল হাসান বলেন, ‘অনকদিন পর এমন স্বাদের একটি গান করেছি। আমার ভক্তরা গানটির মাঝে আগের সেই পিয়াল হাসানকেই খুঁজে পাবেন। আর মিউজিক ভিডিওটি নির্মাতা অনেক যত্ন দিয়ে তৈরি করেছেন। স্পর্শিয়া-সুমিতও অনেক চমৎকার অভিনয় করেছেন। আশা করি, গানটি শ্রোতা-দর্শকদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে।’

 

 

 

 

 

 

স্পর্শিয়া বলেন, ‘অনকদিন পর মিষ্টি একটি গানের মিউজিক ভিডিওটিতে কাজ করলাম। গানের কথা ও গায়কীর সাথে সুমিতের সঙ্গে কাজটি আমার ভিষণ পছন্দ হয়েছে। আশা করি, দর্শক-শ্রোতারা ভাল একটি মিউজিক ভিডিও এর স্বাদ পাবে।’

 

 

 

 

 

সুমিত বলেন, ‘এখনই কিছু বলতে চাচ্ছি না। চমক হিসেবেই থাক। আশা করি, গানটিতে আমার ও স্পর্শিয়ার উপস্থিতি কাউকে নিরাশ করবে উল্লেখ্য, এক সময়ের শ্রোতানন্দিত কণ্ঠশিল্পী পিয়াল হাসান। তার অসংখ্য জনপ্রিয় অ্যালবামের মধ্যে উল্লেখযোগ্য অ্যালবাম হচ্ছে ‘আনন্দ উল্লাস’ (১৯৮৯, পিয়াল হাসান ও খালিদ হাসান মিলু), কান্না (পিয়াল হাসান ও সাজু), রপ কুমারী (পিয়াল হাসান ও পলাশ),

 

 

 

 

 

ভুলতে পাড়ি না সাথী ( পিয়াল হাসান, আসিফ ও আতিক বাবু), কেমন আছো তুমি ( পিয়াল হাসান, আসিফ ও আতিক বাবু), একটাই প্রশ্ন আমার (পিয়াল হাসান, আসিফ ও আতিক বাবু), আমার প্রিয় বান্ধবী (পিয়াল হাসান, আসিফ ও আতিক বাবু) , হার মেনেছি (পিয়াল হাসান, আসিফ ও আতিক বাবু) অন্যদিকে একক অ্যালবাম হিসেবে রয়েছে ভেঙ্গে দেবো তাজমহল, বুক ভরা দীর্ঘশ্বাস, আজও কাঁদি আমি ,কি করে ভুলবো তোমায়, অনেক বুঝিয়েছি আমি। এছাড়াও ওপার বাংলার যৌথ অ্যালবাম করেছেন আশা ভোসলে, কবিতা কৃষ্ণ মূর্তি, অলকা ইয়াগনিক, অভিজিতের সঙ্গে।

 

 

 

ভিডিওটি দেখতে ক্লিক করুন :