প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    সব সম্পর্কেরই ভাল মন্দ দিক আছে। যারা সিঙ্গেল বা নিঃসঙ্গ জীবন কাটাচ্ছেন, তারা একজন মনের মতো সঙ্গীর খোঁজ করে যাচ্ছেন প্রতিদিন। অপরদিকে, যারা বিবাহিত, তারা মনে করেন, ‘একাই ভাল ছিলাম’।

 

 

 

 

বিবাহিত জীবন সম্পর্কে থাকার ক্ষেত্রেও অনেকেরই অনিহা কাজ করে। অনেকেই আবার মনে করেন, সম্পর্কে জড়িয়ে পড়লে স্বাধীনতা হারাবেন তিনি। এই রকম বেশ কিছু যুক্তি দেখিয়ে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ছেলেরা একা থাকতে পছন্দ করে।

 

 

 

 

 

তবে এক এক জনের একা থাকার কারণ এক একেক রকম।

এ বিষয়ে মার্কিন অধ্যাপক, মনোবিজ্ঞানী লিসা ফায়ারস্টোন জানান, সোশ্যাল মিডিয়ায় সমীক্ষা চালিয়ে ২০ হাজারেরও বেশি ‘সিঙ্গল’ পুরুষের মতামত সংগ্রহ করে যে উত্তরগুলি পাওয়া যায় সেগুলিকে ৪৩টি বিভাগে ভাগ করা হয়। এই উত্তরগুলি বিশ্লেষণ করে মনোবিজ্ঞানীরা মোট ৬টি কারণ জানতে পারেন। এই ৬টি কারণ ‘ইভলিউশনারি সাইকোলজিকাল সায়েন্স’ জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

 

 

 

 

 

চলুন জেনে নেয়া যাক, ছেলেদের একা থাকতে চাওয়ার ৬টি প্রধান কারণ হলো-

১. ছেলেরা সম্পর্কে জড়ানোর ক্ষেত্রে মূলত আত্মবিশ্বাসের অভাবে ভোগেন। সম্পর্কে জড়ানোর ক্ষেত্রে এটাই বড় বাধা হয়ে দাঁড়ায়। এ কারণে ছেলেরা একা থাকতে চায়।

 

 

 

 

২. সম্পর্কের বিষয়ে অনেকেই বলেছেন, আসলে সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে তারা খুব বেশি মাথা ঘামাতে চান না।

 

 

 

 

৩. কেউ কেউ আবার তাদের ভেঙে যাওয়া সম্পর্ককে কারণ হিসেবে দেখিয়েছেন। এর পাশাপাশি তারা নারীদের যে আর মন থেকে বিশ্বাস করতে পারেন না, তাও জানিয়েছেন।

 

 

 

 

 

৪. সম্পর্ক নিয়ে একটি সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ২০ হাজারেরও বেশি জনের মধ্যে ৬৬০ জন অংশগ্রহণকারী জানান, তারা মূলত দেখতে ভাল নয়, এজন্য একা থাকতে চান।

 

 

 

 

৫. অনেকেই আবার বলেছেন, তাদের সম্পর্কে জড়ানোর কোনো রকম ইচ্ছাই নেই।

 

 

 

 

 

৬. এই সমীক্ষায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় উঠে এসেছে তা হলো- অনেক ছেলেই নাকি ‘ফ্লার্ট’ করতে পারেন না। তারা খুবই লাজুক সভাবের। এ কারণে মেয়েদের সঙ্গে কথা বলার ক্ষেত্রে জড়তা অনুভব করেন। তাই তারা একা থাকতেই পছন্দ করেন।