প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপটি আজ বিকেলে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। ঘূর্ণিঝড়টিকে ‘তিতল’ নামে অবিহিত করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশ উপকূলে ১১ অক্টোবর মধ্যরাতে আঘাত হানতে পারে বলে আরটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

 

 

 

এদিকে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে চট্টগ্রাম নগরীর লালখান বাজার, মতিঝর্ণা, বাটালিহিলসহ পাহাড়গুলোতে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসকারীদের নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়ার জন্য মাইকিং করা হচ্ছে। খোলা হয়েছে আশ্রয় কেন্দ্র।

 

 

 

 

বিষয়টি আরটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শামীম তানভীর
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপের প্রভাবে আজ ভোর থেকে চট্টগ্রামে বৃষ্টি হচ্ছে। এতে চট্টগ্রামসহ সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর সর্তক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

 

 

 

 

এছাড়া সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে নিরাপদে সরে যেতে বলা হয়েছে এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

 

 

 

 

মঙ্গলবার বিকেলে আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’ পশ্চিম-উত্তর-পশ্চিম দিকে আরও অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে।