প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় দুই সন্তানসহ এক কাতার প্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে স্ত্রী ও শিশু মেয়ের ঝুলন্ত লাশ ঘরের ভেতর থেকে এবং মেঝেতে পড়ে থাকা শিশু ছেলের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

 

নিহতরা হলেন- কাতার প্রবাসী আকামত আলীর স্ত্রী মাজেদা বেগম (২৫), মেয়ে লাবনী বেগম (৫) ও ছেলে ফারুক আহমদ (৩)। নিহত মাজেদার বাবার বাড়ি কুলাউড়া উপজেলার সাদিপুর গ্রামে।

 

পুলিশ ও প্রতিবেশী সূত্রে জানা গেছে, কাতার প্রবাসী আকামত আলীর স্ত্রী প্রতিদিন নিজ বাড়ির পাশেই আরেকটি ঘর নির্মাণে মিস্ত্রিদের সাহায্য-সহযোগিতা করছিলেন। একইভাবে মঙ্গলবারও মিস্ত্রিদের সাহায্য করছিলেন। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে দিবাংশু নামে মিস্ত্রি মাজেদার ঘরে সিমেন্ট নিতে গিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ দেখেন। অনেক ডাকাডাকি করে দীর্ঘক্ষণ সাড়া না পেয়ে দরজার ফাঁক দিয়ে মাজেদাসহ মেয়েকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান এবং লোকজনকে জানান।

 

খবর পেয়ে ওয়ার্ড মেম্বার মাসুক আহমদ ও আওয়ামী লীগ নেতা মোক্তার আলী পুলিশে খবর দেন। সন্ধ্যা ৬টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মা ও মেয়ের ঝুলন্ত মরদেহ ও মেঝে থেকে শিশুপুত্রের মৃতদেহ উদ্ধার করেন।

 

বড়লেখা থানার এসআই অমিতাভ দাস তালুকদার জানান, মা, মেয়ে ও শিশুপুত্রের মরদেহ মেঝে থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানো হবে।