প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের মধ্যে ‘গোলাগুলি’তে আট মামলার আসামি ও কাশিয়ানী উপজেলার শীর্ষ সন্ত্রাসী সনেট ওরফে পিস্তল সনেটকে (৩০) গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

 

গতকাল মঙ্গলবার রাতে কাশিয়ানী উপজেলার চাপ্তা বালুর মাঠ এলাকায় অস্ত্র উদ্ধারের সময় এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

 

এ সময় সন্ত্রাসীদের ছোড়া গুলিতে ডিবি পুলিশের এক এসআইসহ তিন পুলিশ সদস্য আহত হন। সন্ত্রাসী সনেটের কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে পুলিশ। গুলিবিদ্ধ সনেট ওরফে পিস্তল সনেট কাশিয়ানী উপজেলার সন্ধ্যা বাজার এলাকার শহীদ মিয়ার ছেলে।

 

কাশিয়ানী থানার ওসি এ কে এম আলী নূর হোসেন, পিপিএম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘গতকাল মঙ্গলবার সকাল পৌনে ১০টায় কাশিয়ানী উপজেলার সন্ধ্যা বাজার এলাকা থেকে সস্ত্রাসী সনেট ওরফে পিস্তল সনেটকে আটক করে পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তার দেওয়া তথ্যমতে তাকে নিয়ে ওইদিন রাত সোয়া ১টার দিকে উপজেলার চাপ্তা এলাকার বালুর মাঠে অস্ত্র উদ্ধার করতে যায় একদল পুলিশ। এ সময় সেখানে আগে থেকে ওত পেতে থাকা তার অপর সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছেড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়লে সনেট পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন।

 

ওসি আরো বলেন, ‘গোলাগুলিতে ডিবি পুলিশের এসআই গনেশ, কনস্টেবল মাসুদ ও ফরহাদ আহত হয়। পুলিশ ওই স্থান থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে।

 

এ সময় অন্য সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে মারাত্মক আহত সনেটকে প্রথমে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার পঙ্গু  হাসপাতালে পাঠানো হয়। আহত তিন ডিবি পুলিশকে কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

 

গুলিবিদ্ধ সনেটের বিরুদ্ধে কাশিয়ানী থানায় এলাকায় চাঁদাবাজি, অপহরণ, মাদক ব্যবসা, অস্ত্র ব্যবসা, নারী ধর্ষণসহ আটটি মামলা রয়েছে বলে জানান ওসি।