প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সভা চলছে। রাজধানীর লা মেরিডিয়েন হোটেলে এ সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গ্রেপ্তার আতঙ্কের মধ্যেই এতে যোগ দিয়েছেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির ৮০ ভাগ সদস্য।

বিএনপির মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির গণমাধ্যমকে জানান, হোটেলের ১৪ তলার গ্র্যান্ড বল রুমে বিএনপির নির্বাহী কমিটির জরুরি সভা চলছে। বেলা ১১টার কিছুক্ষণ পরে এতে যোগ দেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

বিএনপির আজকের নির্বাহী কমিটির এ বৈঠককে গুরুত্বপূর্ণ মনে করা হচ্ছে। দুর্নীতির মামলায় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে এ বৈঠকে চেয়ারপারসন কী বার্তা দেবেন তা নিয়ে চলছে আলোচনা। বিএনপির নীতিনির্ধারকদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, আজকের বৈঠকে মূলত তিনটি বিষয় গুরুত্ব পেতে পারে।

 

৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়, এতে খালেদা জিয়ার সাজা হলে এবং তিনি নির্বাচনে ‘অযোগ্য’ হলে দলের অবস্থান কী হবে; তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে আন্দোলন এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন। বৈঠকে সার্বিক বিষয়ে দলের কর্মপরিকল্পনা ও জাতীয় রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিস্তারিত তুলে ধরবেন খালেদা জিয়া।

রায়কে কেন্দ্র করে সরকারকে কোনো আলটিমেটাম বা হুঁশিয়ারি দেবেন না তিনি। সব দলের অংশগ্রহণে একটি অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নিতে সরকারকে আবারো সমঝোতার আহ্বান জানাতে পারেন। বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রেখে একতরফা নির্বাচন থেকে সরে আসার আহ্বান জানাবেন।

 

দলের ঐক্যের দিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেবেন তিনি। মামলা, হামলা ও জুলুম-নির্যাতনের মধ্যেও দলের প্রতি আনুগত্য থাকায় তৃণমূলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাবেন খালেদা জিয়া। আন্দোলন ও নির্বাচনের প্রস্তুতির পাশাপাশি যে কোনো পরিস্থিতিতে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানাবেন তিনি। এছাড়া বৈঠকে তৃণমূল নেতারাও তাদের মতামত তুলে ধরবেন।