প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  ভুটান বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য বাড়ানোর আগ্রহ প্রকাশ করেছে। ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) নেতৃবৃন্দের সাথে আজ বুধবার সকালে রাজধানীর মতিঝিলস্থ ফেডারেশন ভবনে ভুটানের প্রতিনিধি দলের এক আলোচনায় ভুটানের পক্ষ থেকে এ আগ্রহ ব্যক্ত করা হয়। ৩৬ সদস্য বিশিষ্ট ভুটানের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন সেদেশের রাজার উপ-গৃহাধ্যক্ষ চেওয়াং রিনজিন।

‘এনগেজ, রিফ্লেক্ট এন্ড প্ল্যান অব এ্যাকশন’ শীর্ষক এ আলোচনা সঞ্চালনা করেন এফবিসিসিআই’র সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম।

ভুটানের প্রতিনিধি দলটির সদস্যরা তাদের দেশে বাংলাদেশের বিনিয়োগ ও বাণিজ্য বৃদ্ধি করার ক্ষেত্রগুলো চিহিৃত করার ওপর গুরুত্ব দেন। বাংলাদেশে ভুটানের রাষ্ট্রদূত সোনাম তোবদেন রাবগে, এফবিসিসিআই’র পরিচালকবৃন্দ এবং ফেডারেশনভুক্ত বিভিন্ন সদস্য সংস্থার প্রধানগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। ভুটান সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এ প্রতিনিধি দলে অন্তর্ভুক্ত হয়ে সপ্তাহব্যাপি শিক্ষা কার্যক্রমে বর্তমানে বাংলাদেশ সফর করছেন।

দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বিদ্যমান চ্যালেঞ্জগুলো খুঁজে দেখা এবং বাণিজ্য উন্নয়নের সম্ভাবনা খতিয়ে দেখার লক্ষ্যেই তাদের বাংলাদেশ সফর বলে ভুটান প্রতিনিধি দলের সদস্যরা জানান। তারা বাংলাদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়ন কার্যক্রমের প্রশংসা করেন।
ভুটান এবং বাংলাদেশ উভয়ই এলডিসিভূক্ত দেশ তাই পারস্পরিক স্বার্থেই কার্যকর প্রচেষ্টার মাধ্যমে দেশ দু’টি বাণিজ্যিক সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় নিতে পারে বলেও এ আলোচনায় বক্তারা উল্লেথ করেন। এ অনুষ্ঠানে ভুটানের রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়নকে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে উল্লেখ করে বাংলাদেশি ব্যবসায়িদের জন্য তার দেশে বিজনেস ভিসা প্রাপ্তি সহজীকরণের ঘোষণা দেন।

এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম বিদ্যমান বাণিজ্য সম্প্রসারণে বিভিন্ন নন-ট্যারিফ মেজার্সের উল্লেখ করে স্থলবন্দরের সুবিধা এবং পণ্য হ্যান্ডলিং ব্যবস্থা উন্নয়নের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। ভুটানের সাথে বাণিজ্য উন্নয়নে বর্তমান সরকারের পাশাপাশি দেশের বেসরকারি খাতও একযোগে কাজ করছে বলে তিনি জানান। ফাহিম বাংলাদেশ ও ভুটানের পর্যটন সম্ভাবনাকে আরও বলিষ্ঠভাবে কাজে লাগাতে এফবিসিসিআই এবং ভুটান দূতাবাসের উদ্যোগে একটি ‘পর্যটন সামিট’ আয়োজনের প্রস্তাব দেন।