প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট : আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী চূড়ান্ত করেছিল। এমনকি কাউন্সিলর পদে যারা নির্বাচন করবে, তাদের নামও চূড়ান্ত করেছিল। কিন্তু নির্বাচন স্থগিত হওয়ায় তাদের নাম প্রকাশ করা হয়নি। বিএনপি শুধু মেয়র প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করেছিল।

 

 

কাউন্সিলর প্রার্থীদের নাম চূড়ান্ত করতে পারেনি বলে নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। আজ শুক্রবার দুপুর ১২টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাকক্ষে বর্তমান প্রেক্ষাপট শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ আলোচনা সভাটির আয়োজন করে।

 

১৬ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) উপনির্বাচন স্থগিত চেয়ে পৃথক দুটি রিট দায়ের করেছিলেন ভাটারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ও বেরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপির ষড়যন্ত্রেই ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপনির্বাচন হাইকোর্ট স্থগিত করেছেন।

 

 

 

বিএনপির ভাটারা থানার সাধারণ সম্পাদক ও বেরাইদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের রিটের প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট ডিএনসিসির নির্বাচন স্থগিত করেছেন। এই দুইটি মামলাই ছিল বিএনপি নেতাদের। বিএনপির আরেক নেতা কামরুজ্জামানের রিটের প্রেক্ষিতে ডিএসসিসির ১৮টি ওয়ার্ডের নির্বাচনও স্থগিত করা হয়।

 

 

 

ড. হাছান মাহমুদ আরও বলেন, আওয়ামী লীগ দেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে নিয়ে এসেছে, কিন্তু খালেদা জিয়ার নের্তৃত্বে নেতিবাচক রাজনীতি দেশকে পিছিয়ে দিচ্ছে।

 

 

 

তারা যদি নেতিবাচক রাজনীতি না করে গঠনমূলক সমালোচনা করতেন, তাহলে দেশ আরও এগিয়ে যেত। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ডাবল ডিজিটে পরিণত হতো। দুঃখজনক হলেও সত্য নেতিবাচক রাজনীতি থেকে বিএনপি-জামায়াত বেরিয়ে আসতে পারেনি।