প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  বয়স ৪০ পেরোলে শরীরের দিকে বাড়তি নজর দেওয়া জরুরি হয়ে পড়ে। এ বয়সে শরীরকে তরতাজা রাখতে কয়েকটি খাবার নিয়ে আজকের টিপস।

 

দই

চল্লিশোর্ধ্বদের জন্য প্রয়োজনীয় খাবারের কথা বলতে গেলে শীর্ষে থাকবে দই। এতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম রয়েছে, যা হাড় সুস্থ রাখে। এ ছাড়া এতে থাকা বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ, ওজন হ্রাসসহ সার্বিকভাবে সুস্থ থাকতে সহায়তা করে।

 

গ্রিন টি

নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে চল্লিশোর্ধ্বদের বেশ কিছু উপকার হয়। এর মধ্যে রয়েছে হূদরোগ ও স্ট্রোক প্রতিরোধ এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ। চীনে এক গবেষণায় দেখা গেছে, চল্লিশোর্ধ্বদের যাঁরা নিয়মিত গ্রিন টি পান করেন তাঁদের প্রোস্টেট ক্যান্সারের আশঙ্কা কমে যায়।

 

তরমুজ

চল্লিশের পর যে ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দেয় তার অনেকগুলো প্রাকৃতিকভাবে নিরাময় করতে পারে তরমুজ। এতে রয়েছে অ্যামাইনো অ্যাসিড, যা দেহ সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। এটি রক্তপ্রবাহ বৃদ্ধির পাশাপাশি শরীরের উদ্যম বাড়ায়।

 

রসুন

দেহের মেদ জমা দূর করতে ভূমিকা রাখে রসুন। এ ছাড়া এটি ক্যান্সার প্রতিরোধ ও সার্বিকভাবে শরীরকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

 

শিম ও শাকসবজি

যেকোনো শাকসবজিই এ বয়সে যথেষ্ট উপকারী। তবে বিশেষজ্ঞরা শিমের কথা বিশেষভাবে বলে থাকেন। এটি উদ্ভিজ্জ প্রোটিনের একটি বড় উত্স। এ ছাড়া এতে রয়েছে ৯টি প্রয়োজনীয় অ্যামাইনো এসিড।

 

দানাদার ও বাদামি খাবার

চল্লিশের পর প্রয়োজন হয় পর্যাপ্ত আঁশযুক্ত খাবার, প্রোটিন, ভিটামিন, মিনারেল ও উদ্ভিজ্জ উপাদান। বাদামি আটা, ঢেঁকিছাঁটা বা বাদামি খোসাযুক্ত চাল প্রভৃতি এ বয়সে বেশি করে খেতে হবে। এগুলো দেহের কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ ও ওজন নিয়ন্ত্রণ করে দেহকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।