প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  বাংলাদেশে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) চেয়ারম্যান কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদ বীর বিক্রম বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসনকে যেভাবে সাজা দেওয়া হয়েছে, তা অন্যায়। কারণ ১০ দিনের মধ্যে এত বিশাল রায় লেখা একজন বিচারকের পক্ষে সম্ভব নয়। সরকারের উদ্দেশ্য ছিল, খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠাবে। আর সে জন্য রায় ঘোষণার আগে থেকেই কারাগার পরিষ্কার করার কাজ শুরু করে।

 

আজ মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে নতুন হলের এক আলোচনায় অংশ নিয়ে এ সব কথা বলেন।

কর্নেল অলি বলেন, বর্তমান সরকারের উদ্দেশ্য খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে আবারও একটা পাতানো নির্বাচন করা। কিন্তু বাংলাদেশে খালেদা জিয়া, ২০ দল ও জাতীয়তাবাদী শক্তিকে বাইরে রেখে কোনো নির্বাচন হবে না

 

তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের একাউন্টে এই টাকা ছিল না। তারা অন্যকোনো জায়গায় এই টাকা জমাও রাখেননি। তাদের এই মামলায় কোনো সম্পৃক্ততা নেই। পদ্ধতিগত ভুল থাকতে পারে। সুতরাং এখানে সরকারের হস্তক্ষেপ একশ পারেসেন্ট।

 

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু করতে অবশ্যই বেগম জিয়াকে মাঠে থাকতে হবে। এই জন্য খালেদা জিয়ার অবিলম্বে মুক্তি চাই।

 

আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, এলডিপের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল গনি, আবদুল করিম আব্বাসী, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহদাৎ হোসেন সেলিম, এনডিপির মহাসচিব মুন্জুর হোসেন ইসা প্রমুখ।