প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :

রুচি বদলাতে সকালের নাস্তায় ভিনদেশী খাবার

প্রতি দিন একই ধরনের খাবার কারো ভালো লাগে না। একই খাবার দিয়ে সকালের নাস্তা করতে করতে ক্লান্ত হয়ে গেলে রুচি বদলানো উচিত। আর রুচি বদলানোর জন্য দেশি খাবারের চাইতে ভিনদেশী খাবার বেশি কার্যকর। কারণ প্রতিটা দেশের খাবের স্বাদ রান্নার ধরন আলাদা হয়ে থাকে। তাই ভিন্নতা খুঁজে পাওয়া যায় বেশি। আর শীতের মৌসুমে কিছু মুখরোচক চটপটে খাবার ভালো লাগে বেশি। তবে স্বাস্থ্যের দিকেও নজর রাখতে হবে। তাই রইল কিছু স্বাস্থ্যকর এবং মুখরোচক খাবারের সন্ধান ভিনদেশী নাস্তার মেনু।

উপমা:

ভারতের এই দক্ষিণী খাবার দিয়ে নাস্তা সারতে পারেন। স্বাদ আনতে সাম্বর দিয়ে উপমা খেয়ে দেখতে পারেন। সারা দিন তরতাজা থাকবেন।

থেপলা:

আটা, কসুরি মেথি এবং কারিপাতা সহযোগে বানানো এই গুজরাতি খাবার দিনের শুরুতে মন্দ লাগবে না। খেয়ে দেখতে পারেন, স্বাস্থ্যের জন্য বেশ ভালো।

স্প্রাউট স্যালাড:

সিদ্ধ ডিম, সব্জি দিয়ে বানানো এই স্যালাড ডায়েট তালিকায় অনায়াসেই রাখতে পারেন। এই স্যালাডে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার, ভিটামিন এবং মিনারেল রয়েছে যা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপযোগী।

পোহা:

নাস্তায় পোহা খুবই উপকারী। মহারাষ্ট্রে এই খাবারের খুব চল রয়েছে। পোহাতে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার এবং প্রোটিন রয়েছে। স্বাস্থ্যের জন্যও ভালো।

মশলা ওমলেট:

সুষম খাদ্য হিসেবে ডিমের তো নাম রয়েছেই। একটি ডিমে প্রায় ৬ গ্রাম প্রোটিন রয়েছে। একটু অন্য স্বাদ পেতে, পেঁয়াজ, টোম্যাটো, ক্যাপসিকাম দিয়ে বানিয়ে ফেলুন মশলা ওমলেট। প্রাতরাশে মন্দ নয়।

ইডলি সম্বর:

স্বাস্থ্যকর ডায়েট তালিকায় এই দক্ষিণী খাবার তার জায়গা পাকা করে নিয়েছে। ইডলি যেমন মুখরোচক, তেমনি এর মধ্যে প্রোটিন, ফাইবার, ভিটামিন ও মিনারেল রয়েছে। যারা নাস্তায় ফল খেয়ে ক্লান্ত, ইডলি খেয়ে দেখতে পারেন।

আলু, পালং পুরি:

আলু এবং পালং শাকের পুর দিয়ে তৈরি এই পুরি শীতের সকালে আলাদা আমেজ নিয়ে আসে। তা ছাড়া, পালং-এ প্রচুর ফাইবার রয়েছে যা ওজন কমাতে সাহায্য করে।

সূত্র: একে

ইসি/