প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  আগামী জাতীয় নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে দাবি করলেও নির্বাচন নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন দলটির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। আজ বুধবার বিকেলে চট্রগ্রাম নগরীর রেডিসন ব্লুতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

 

তিনি আরো বলেন, ‘আপাতত আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটে আছি। আগামীতে কী হবে, কিভাবে নির্বাচন হবে সে সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। ’

আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে এরশাদ বলেন, জাতীয় নির্বাচন নিয়ে এখন কথা বলা উচিত হবে না। তিনি আরো বলেন, কারণ আওয়ামী লীগ আমাদের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী দল। আমরা সংগঠিত হচ্ছি। আমাদের ৩০০ প্রার্থী আছে। তবে কতজন প্রার্থী জয়ী হতে পারবে সে সম্পর্কে আমরা নিশ্চিত নই।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমাদের কর্মীদের মধ্যে উৎসাহ সৃষ্টি হয়েছে। আমার মনে হয় সুষ্টু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আমরা ভাল করব।

এ সময় জাতীয় পার্টির সঙ্গে জোটের বিষয়ে সম্প্রতি বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের একটি বক্তব্যের প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে এরশাদ বলেন, ফখরুল ইসলাম কী বলেছেন সে সম্পর্কে আমার ধারণা নেই। তবে আমরা এককভাবে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়েছি।

মির্জা ফখরুলের বক্তব্যের বিষয়ে তিনি আরো বলেন, জাতীয় পার্টি নির্বাচনে ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই সবাই আমাদের চাচ্ছে। কিন্তু আমরা কোথায় যাব, কিভাবে নির্বাচন করব, সেটা ডিপেন্ড করবে আমাদের উপর। আমাদের কর্মীদের উপর, নেতাদের উপর। আমরা সিদ্ধান্ত নেব কিভাবে নির্বাচন করব।

এ ছাড়াও দেশের যুবসমাজে অসন্তোষ রয়েছে উল্লেখ করে সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, কারণ যুবকদের কর্মসংস্থান নেই। বিনিয়োগ নেই। তাই যুবসমাজ বিপথে চলে যাচ্ছে। অনেকে মাদকাশক্ত হয়ে পড়ছে। এটা আমাদের জন্য সুখকর নয়। জাতির জন্য লজ্জাজনক কথা। সরকারের প্রয়োজন বিদেশি বিনিয়োগ নিয়ে আসা, শিল্প কারখানা গড়ে তোলা। শিক্ষিত যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে না পারলে সমাজে যে অশান্তি সৃষ্টি হয়েছে তা আরও বৃদ্ধি পাবে।